অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারতের যুদ্ধবিমান কেনার চুক্তির দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে ফ্রান্স সরকারিভাবে তদন্ত শুরু করেছে


ভারতের সঙ্গে ফ্রান্সের অত্যাধুনিক রাফাল যুদ্ধবিমান কেনার চুক্তির পিছনে সম্ভাব্য দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে ফ্রান্স সরকারিভাবে বিচারবিভাগীয় তদন্ত শুরু করেছে। এ জন্য ফরাসি আর্থিক তদন্তকারী সংস্থা পিএনএফের নির্দেশে একজন বিচারক নিযুক্ত হয়েছেন, যিনি এই তদন্ত পরিচালনা করবেন।

মোদি সরকারের আমলে ২০১৬ সালে ভারত ফ্রান্সের কাছ থেকে ৩৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান কিনবে বলে ৫৯০০০ কোটি টাকার একটি চুক্তি করে। এর আগে ভারতের সঙ্গে ১২৬টি রাফাল কেনার যে চুক্তি হয়েছিল, রাফালের উৎপাদনকারী সংস্থা 'দাসাউ' সেটি বাতিল করে দেয় এবং নতুন চুক্তি সই হয়। ফরাসি অনুসন্ধানী ওয়েবসাইট 'মেদেয়াপার' এই খবর দিয়েছে।

এটা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির যথেষ্ট অস্বস্তির কারণ হয়ে উঠতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কারণ, কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী বারবারই বলে এসেছেন, এই চুক্তির পেছনে দুর্নীতি আছে, তার তদন্ত হোক। তাঁর অভিযোগ ছিল, নরেন্দ্র মোদি স্বয়ং সেই দুর্নীতির জন্য দায়ী। তিনি সরকারি বিমান নির্মানকারী সংস্থা 'হিন্দুস্তান অ্যারনোটিকস লিমিটেড'-এর বদলে তাঁর পছন্দের লোক অনিল আম্বানিকে ওই অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান ভারতে তৈরির বরাত পাইয়ে দিয়েছেন। অথচ অনিল আম্বানির যুদ্ধবিমান দূরে থাক, কোনো রকম উৎপাদনেরই অভিজ্ঞতা নেই, পরিকাঠামোও নেই।

পিএনএফ জানিয়েছে, আর্থিক দুর্নীতি, কালো টাকা সাদা করা, প্রভাব খাটানো ও স্বজনপোষণ, এই চারটি অভিযোগেরই তদন্ত হবে। এছাড়া এই চুক্তির জন্য কেউ দালালি বাবদ অর্থ পেয়েছে কিনা, তাও দেখা হবে।

আজ শনিবার কংগ্রেসের মুখপাত্র বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী মোদি এবার এগিয়ে আসুন এবং এবিষয়ে যৌথ সংসদীয় কমিটির বৈঠক ডাকুন, যেখানে নিরপেক্ষভাবে রাফাল চুক্তির পেছনে দুর্নীতির অভিযোগের তদন্ত হবে।

XS
SM
MD
LG