অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ফ্রান্স নিজারে বিক্ষোভকারীদের ভিড়ে গুলি চালায়নি: ফ্রান্সের সেনা মুখপাত্র


ফাইল ছবিতে দেখা যাচ্ছে, বুর্কিনা ফাসোর কায়াতে দেশটির সেনা কর্মকর্তারা ফ্রান্সের একটি সাঁজোয়া যানের কাছে টহল দিচ্ছেন। নভেম্বর ২০, ২০২১।

নিজারে গত মাসের শেষের দিকে বিক্ষোভকারীদের ভিড়ে ফরাসি সৈন্যরা গুলি চালিয়েছে, এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ফ্রান্সের সেনাবাহিনীর একজন মুখপাত্র। ফ্রান্সের বাহিনীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভের ফলে আফ্রিকার সাহেল অঞ্চলের নিরাপত্তা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে।

ঐ অঞ্চলে ক্রমেই সক্রিয় হয়ে ওঠা ইসলামপন্থী জঙ্গি গ্রুপগুলোর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আফ্রিকার দেশগুলোর সরকারকে সাহায্য করার জন্য ফ্রান্সের সেনাবাহিনীকে সেখানে পাঠানো হয়েছিল।

অনলাইনে ছড়িয়ে দেয়া ভুল তথ্যের কারণে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ শুরু হয়। অনলাইনের ঐ ভুল তথ্যে বলা হয়- ফরাসি বাহিনী ইসলামিক স্টেট এবং আল-কায়েদার সঙ্গে যুক্ত গোষ্ঠীগুলোকে অস্ত্র দিচ্ছে। কার্যত ফ্রান্স প্রায় এক দশক আগে ঐ একই গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে সাহেল অঞ্চলে লড়াই করার জন্য সৈন্য মোতায়েন করেছিল।

ফ্রান্সের একটি সামরিক বহর এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে বুর্কিনা ফাসোতে আটকা পড়েছিল। কারণ বিক্ষোভকারীরা বহরটির অগ্রসর হবার পথ বন্ধ করে দেয়। পরে গত ২৬শে নভেম্বর ঐ বহরটি নিজারে চলে যেতে সক্ষম হয়। পরের দিন নিজারের লোকেরা ফ্রান্সের সেনাবাহিনীর বহরটিতে কি পরিবহন করা হচ্ছে তা জানার দাবিতে ঐ বহরটি অবরোধ করে। বুর্কিনা ফাসোতেও ঐ একই ঘটনা ঘটেছিল।

নিজারের কর্তৃপক্ষ বলেছে, গত ২৭শে নভেম্বর দুইজন বিক্ষোভকারী নিহত এবং ১৬ জন আহত হয়েছেন। ফ্রান্সের টিভি স্টেশন টিভি৫ মন্ডে'কে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, তারা ভিড়ের মধ্যে ফ্রান্সের সৈন্যদের গুলি চালাতে দেখেছেন।

ভয়েস অফ আমেরিকার সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে ফ্রান্সের সেনা প্রধানের মুখপাত্র কর্নেল প্যাসকাল ইয়ানিকের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল যে- তার দেশের সৈন্যরা বিক্ষোভকারীদের উপর গুলি চালিয়ে ছিল কিনা?

জবাবে তিনি বলেন, “আমি এই মাত্র যা বলেছি তার পুনরাবৃত্তি করছি- ফরাসি বাহিনী জনতার উপর গুলি চালায়নি। তিনি বলেন, ফরাসি বাহিনী সবচেয়ে সহিংস বিক্ষোভকারীদের থামাতে ভিড়ের উপরের দিকে এবং সামনে ও পায়ের দিকে গুলি চালিয়েছিল।

XS
SM
MD
LG