অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জাতীয় নিরাপত্তা আইনের অধীনে হংকংয়ে অধিকার কর্মীর ৪৩ মাসের কারাদণ্ড


স্বাধীনতাপন্থী বিক্ষোভকারী টনি চুং (বামে) হংকংয়ে প্রতিবাদ মিছিল করছেন৷ ১লা জানুয়ারী, ২০২১।

জাতীয় নিরাপত্তা আইনের অধীনে বিচ্ছিন্নতাবাদী এবং মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করার পর, মঙ্গলবার তিন বছর সাত মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হল হংকংয়ের ছাত্র ও অধিকার কর্মী টনি চুংকে।

২০ বছর বয়সী চুং হংকংয়ের জাতীয় নিরাপত্তা আইনের অধীনে দোষী সাব্যস্ত হওয়া সর্বকনিষ্ঠ ব্যক্তি। চীন গত বছর থেকে ওই আইন বলবত করে।

স্থানীয় মিডিয়া জানিয়েছে, গত ৩রা নভেম্বর দোষী সাব্যস্ত হবার পর চুং বলেছিলেন, “আমার ভিতরে এ নিয়ে কোন লজ্জা নেই”।

রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার তার শাস্তির ২৫% কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর ফলে চুং-কে বিচ্ছিন্নতাবাদের জন্য ৪০ মাস এবং অর্থ পাচারের জন্য ১৮ মাস কারাগারে বন্দী থাকতে হবে।

সক্রিয়বাদী চুং হলেন যুব কর্মী গোষ্ঠী স্টুডেন্ট লোকালিজমের প্রাক্তন আহ্বায়ক। এটি একটি স্বাধীনতাপন্থী ছাত্র সংগঠন, যেটি ২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।

কর্তৃপক্ষ ২০২০ সালের অক্টোবরে হংকং-এ আমেরিকান দূতাবাসের বাইরে থেকে ওই কর্মীকে গ্রেপ্তার করে। তিনিই প্রথম রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, যিনি নিরাপত্তা আইনে অভিযোগের মুখোমুখি হন, এবং নিরাপত্তা আইনে বিচ্ছিন্নতার দায়ে দণ্ডিত তৃতীয় ব্যক্তি।

২৪ বছর বয়সী সক্রিয়বাদী লিওন টং ইং-কিট, নিরাপত্তা আইনের অধীনে প্রথম সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তি। গত জুলাই মাসে, তিনি সন্ত্রাসবাদ এবং বিচ্ছিন্নতার জন্য দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর, নয় বছরের সাজা পেয়েছিলেন।

XS
SM
MD
LG