অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চলের রাজ্য অরুনাচল প্রদেশকে চীন নিজেদের ভূখণ্ড বলে দাবি ক’রে, সেখানে পরিকাঠামো গড়ে তোলার ব্যাপারে এবার ভারতকে সাবধান, সংযম দেখাতে বলল তারা।
গত সপ্তাহেই মোদী ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর দেশের দীর্ঘতম এই সেতুর সূচনা করেন। প্রয়াত গায়ক ভূপেন হাজারিকার নামাঙ্কিত এই সেতু অসমের সঙ্গে অরুণাচলের সংযোগ স্থাপন করেছে। চীনের দাবি, অরুণাচল তিব্বতেরই দক্ষিণচীনা বিদেশমন্ত্রকের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আমরা আশা করি, যৌথ ভাবে বিতর্কের নিরসন করা, সীমান্তে শান্তি, সুস্থিতি বজায় রাখা নিয়ে চিনের সঙ্গে চূড়ান্ত ফয়সালা না হওয়া পর্যন্ত ভারত সংযম দেখাবে, সাবধান হবে। চীন-ভারত সীমান্ত এলাকার পূর্ব এলাকা নিয়ে চীনের অবস্থান স্পষ্ট, সঙ্গতিপূর্ণ। দ্বিপাক্ষিক আলাপ-আলোচনার পথেই ভারত ও চিনের ভূখণ্ড সংক্রান্ত সমস্যা মিটিয়ে ফেলা উচিত বলেও অভিমত জানিয়েছে বেজিং।
প্রসঙ্গত বলা যেতে পারে নয় দশমিক এক পাঁচ কিমি দীর্ঘ ঢোলা-সাদিয়া সেতু চালু হওয়ায় অসম ও অরুণাচলের দূরত্ব একশো পঁয়ষট্টি কিমি কমবে, পাঁচ ঘন্টা সময়ও কম লাগবে দুটি রাজ্যের মধ্যে যাতায়াতে।
পাশাপাশি এই সেতু গড়ে ওঠার ফলে ভারতীয় সেনাবাহিনীর অরুণাচল পৌঁছনোয় ঝঞ্ঝাট থাকবে না বলেও মত নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের, যা ঊন্নিশো বাষট্টি সালের ভারত-চীন যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে চীনকে চিন্তায় ফেলে দিয়েছে বলেও মনে করছেন তাঁরা।

বিস্তারিত জানিয়েছেন কলকাতা থেকে পরমাশিষ ঘোষ রায়।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:00 0:00

XS
SM
MD
LG