অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বিরোধীরা অপপ্রচার চালাচ্ছে: বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী


নাগরিকত্ব আইন নিয়ে সরকারের অবস্থান স্পষ্ট। ধর্মীয় কারণে অত্যাচারের শিকার তিন দেশের সংখ্যালঘু মানুষদেরই এদেশে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। বিরোধীরা এনিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে। কলকাতার স্বভূমিতে অর্থ-অ-কালচারাল ফেস্ট অনুষ্টানে এসে বললেন বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী।

রবিবার অনুষ্ঠানের একাধিক বিষয় নিয়ে কথা বলেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। এর মধ্যে উঠে আসে অযোধ্য মামলার রায়, সিএএ, ধর্মীর স্থান পরিচালনায় সরকারের হস্তক্ষেপ-সহ একাধিক বিষয়। প্রশ্নোত্তর পর্বে স্বামী বলেন, বর্তমান সরকার যে কাজ করেছে সেই কাজটাই ২০০৩ সালে সরকারকে করতে অনুরোধ করেছিলেন মনমোহন সিং।

বিরোধী আসনে দাঁড়িয়ে তিনি সরকারকে অনুরোধ করেন, পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্থান থেকে যেসব সংখ্যালঘু মানুষজন আসছেন তাঁদের এদেশের নাগরিকত্ব দেওয়া হোক। এই আইনে এদেশের একজন মুসলিমেরও কোনও ক্ষতি হবে না। আজ তারাই প্রশ্ন তুলছেন।প্রশ্ন ওঠে, মায়ানমার ও শ্রীলঙ্কার উদ্বাস্তু মানুষদের নাগরিকত্ব কেন নয়?

সুব্রহ্মণ্যম স্বামী বলেন, দেশভাগের পর বাংলাদেশ থেকে বহু মানুষ এদেশে এসেছেন। তাদের অনেকেই ফিরে গিয়েছেন। কিন্তু একাত্তরের যুদ্ধের পর ধর্মের কারণে অত্যাচারিত হয়ে অনেকেই এদেশে এসেছেন। আমাদের দেশের নীতিই ছিল এদের নাগরিকত্ব দেওয়া। সেটাই দেওয়া হয়েছে। শ্রীলঙ্কায় গোলমালের সময়ে এদেশে আশ্রয় নিয়েছিলেন এক কোটি মানুষ। অশান্তি মিটে যেতে তাদের অনেকেই ফিরে গিয়েছেন। রয়ে গিয়েছেন মাত্র ১৬,০০০ মানুষ।নাগরিকত্ব আইন ছাড়াও অযোধ্যা মামলার রায় সম্পর্কেও মন্তব্য করেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। তিনি বলেন, এতদিন ধরে পড়ে থাকা একটি মামলার নিস্পত্তি হয়েছে। দেশের মুসলিমরা এই রায় মেনে নিয়েছেন। তাদের ধন্যবাদ।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:34 0:00


XS
SM
MD
LG