অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কাবুল বিমানবন্দর গেটে নিহত ৭; বিশৃঙ্খলার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছে তালিবান


কাবুলের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ঘীরে পাহারা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের সেনারা

কাবুল বিমানবন্দরের চারপাশে বিশৃঙ্খলার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছে তালিবান। তারা আফগানিস্তান দখলের পর থেকে হাজার হাজার মানুষ বিমানবন্দর দিয়ে সে দেশ থেকে চলে যাওয়ার চেষ্টা করছে।

কাবুলের একটি সামরিক বিমানবন্দরে আফগান জনগণ রাস্তা জুড়ে জড়ো হয়ে আমেরিকার একটি সামরিক বিমানে চড়ে দেশ ছাড়ার অপেক্ষায়
কাবুলের একটি সামরিক বিমানবন্দরে আফগান জনগণ রাস্তা জুড়ে জড়ো হয়ে আমেরিকার একটি সামরিক বিমানে চড়ে দেশ ছাড়ার অপেক্ষায়

ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় শনিবার বিমানবন্দরের কাছে সাতজন আফগান নাগরিকের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

একজন তালিবান শীর্ষ নেতা আমির খান মুতাকি জোর দিয়ে বলেন, “সারা দেশে শান্তি বিরাজ করছে”, তিনি বলেন, “বিশৃঙ্খলা রয়েছে কেবল কাবুল বিমানবন্দরে”।

কাবুল বিমানবন্দর দিয়ে মানুষজন সরিয়ে নেওয়ার কার্যক্রম পরিচালনার জন্য যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য দেশের সেনাবাহিনী সেখানে কাজ করছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, দেশ ছাড়ার জন্য মরিয়া জনতা বিমানবন্দর এলাকায় ভিড় জমালে, বিমানবন্দরের বাইরে শূন্যে গুলি ছোঁড়ে তালিবান যোদ্ধারা।

একটি শিশুকে কাবুল বিমানবন্দরের ঘেরের দেয়ালের ওপর দিয়ে আমেরিকান সেনাবাহিনীর হাতে তুলে দিচ্ছে শিশুটির অবিভাবক
একটি শিশুকে কাবুল বিমানবন্দরের ঘেরের দেয়ালের ওপর দিয়ে আমেরিকান সেনাবাহিনীর হাতে তুলে দিচ্ছে শিশুটির অবিভাবক

কোনোমতে একটি ফ্লাইটে জায়গা পাওয়ার আশায় হাজার হাজার আফগান নাগরিকদের ভিড়ে কাবুল বিমানবন্দর প্লাবিত হয়ে যায়। তাদের আশঙ্কা, দেশটি আবারো ইসলামী আইনের কঠোর ব্যাখ্যায় ফিরে যাবে, ঠিক যেমনটা হয়েছিল ২০ বছর আগে তালেবান শাসনামলে।

ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, “সেখানকার পরিস্থিতি অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং তবে যতটা সম্ভব নিরাপদে আমরা আমাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছি।

শনিবার কাবুলে তাপমাত্রা ৩৪° ডিগ্রি সেলসিয়াসে (৯৩° ডিগ্রি ফারেনহাইট) পৌঁছেছে। নিহতরা কি শারীরিকভাবে পিষ্ট হয়ে, শ্বাসরুদ্ধ হয়ে নাকি ভিড়ের মধ্যে হার্ট অ্যাটাক হয়ে মারা গেছেন, তা তাত্ক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

XS
SM
MD
LG