অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার 


গ্রেফতারকৃত মাদ্রাসা শিক্ষক আবু রায়হান।

শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণকরার অভিযোগে আবু রায়হান নামের এক মাদ্রাসা শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন১২ (র‌্যাব)।রায়হান সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা উপজেলার কুমাজপুর দারুল আবরার ক্বওমী হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক। আবু রায়হানকে ঢাকার ভাটারা থানাধীন বাড্ডা এলাকা হতে শুক্রবার ভোরে গ্রেফতার করে র‌্যাব জানায়, চলতি আগস্ট মাসের ১১ তারিখ রাতে মাদ্রাসার আবাসিকে থাকা একজন শিশু শিক্ষার্থীকে ওই মাদ্রাসা শিক্ষক আবু রায়হান তার শয়ন কক্ষে ডেকে নেয়।

পরে ওই শিক্ষার্থীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর করে বলাৎকার (ধর্ষণ) করেন। পরে বিষয়টি গোপন রাখার জন্য ওই শিক্ষার্থীকে প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। ফলে ওই শিক্ষার্থী ভয়ে ওই দিন বিষয়টি কাউকে বলেনি।

ওই ঘটনার কয়েক দিন পর আবার এক রাতে ওই শিক্ষার্থীকে কু-কর্ম করার প্রস্তাব দেয়। ওই দিন শিক্ষকের কথায় রাজি হয়নি ওই শিক্ষার্থী। ফলে তাকে বেদম মারপিট করেন ওই শিক্ষক।

এদিকে মারধরের ঘটনার পর ওই শিক্ষার্থী বাড়ি যাওয়ার জন্য ছুটির আবেদন করে। শিক্ষক তার ছুটির আবেদন নামঞ্জর করেন। পরে ওই শিক্ষার্থী ১৯ আগস্ট গোপনে নিজ বাড়ি চলে যায়। বাড়ি গিয়ে ওই শিক্ষার্থী তার পরিবারের কাছে শিক্ষক আবু রায়হানের কুকর্মের কথা খুলে বলে।পরবর্তীতে শিক্ষার্থীর অভিভাবকেরা মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির কাছে বিষয়টি জানালে কমিটির লোকজন বিচারের আশ্বাস দেয়। বিষয়টি টের পেয়ে আবু রায়হান আত্মগোপন করে। উক্ত ঘটনাটি এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি করে এবং স্থানীয় জনগনের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি করেছে।

র‌্যাব ১২ এর স্পেশাল কোম্পানীর সহকারী পুলিশ সুপার মি. জন রানা জানান, ওই ঘটনায় শিক্ষার্থীর পরিবার থেকে সলঙ্গা থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করা হয় এবং র‌্যাব১২ এর কাছে আসামীকে গ্রেফতারের আবেদন জানায়।পরে র‌্যাবের সদস্যরা বিভিন্ন গোয়েন্দা তথ্য এবং আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে শিক্ষক আবু রায়হানকে ঢাকার ভাটারা থানাধীন বাড্ডা এলাকা হতে শুক্রবার ভোরে গ্রেফতার করেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। গ্রেফতারকৃত আসামীকে সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

XS
SM
MD
LG