অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মিয়ান্মারের বিক্ষোভে ৪ জন নিহত: ভারতে রোহিঙ্গাদের গ্রেপ্তার


Myanmar

বিক্ষোভকারীরা আজ আবারও মিয়ান্মারের রাস্তায় নেমে এসেছে এবং নিরাপত্তা বাহিনী জনগণের উপর কয়েক রাউন্ড গুলি চালিয়েছে। মিয়ান্মারের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মান্ডালের এবং পিয়ায় শহরের কেন্দ্রস্থলে কমপক্ষে চারজন বিক্ষোভকারি নিহত হয়েছে। মিয়ান্মারে অব্যাহত প্রতিবাদ ও সহিংসতার মুখে জাতিসংঘের মানবাধিকার তদন্তকারী টমাস অ্যান্ড্রুজ সামরিক হুন্তার বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

এ দিকে নতুন দিল্লিতে রোহিঙ্গা শরনার্থীরা পুলিশের হয়রানি থেকে আশ্রয় নেয়ার জন্য জাতিসংঘের শরনার্থী সংস্থায় বা UNHCR‘র দপ্তরে আসার পর পুলিশ তাদের অনেককেই গ্রেপ্তার করেছে। নাম প্রকাশে অস্বীকৃতি জানিয়ে একজন পুলিশ ভয়েস অফ আমেরিকাকে বলে, “আমরা নারী ও শিশুসহ ৮৮ জন রোহিঙ্গাকে আটক করেছি। পুলিশ মিয়ান্মার থেকে আসা এই সব অবৈধ আশ্রয়প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। তারা তাদের পাসপোর্ট কিংবা ভারতীয় ভিসা দেখাতে পারেনি তাই তাদের আটক করা হয়েছে”। মিয়ান্মার সরকার ১৯৮২ সালে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্বের অধিকার ছিনিয়ে নেয়।

গত বছরের হিসেব মতো প্রায় চল্লিশ হাজার রোহিঙ্গা শরনার্থী এখন ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে, তবে ভারতে হিন্দু জাতীয়তাবাদী বিজেপি ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে সেখানে রোহিঙ্গা-বিরোধী মনোভাব বৃদ্ধি পেয়েছে। এক বিবৃতিতে UNHCR এর এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের পরিচালিকা ইন্দ্রিকা রাতওয়াতে বলেছেন, ৮৮ জন রোহিঙ্গার এই গ্রেপ্তার সম্পর্কে UNHCR উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

XS
SM
MD
LG