অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আদালতের রায়ে বাতিল হয়ে যাওয়া ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে নতুন করে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। আর এই বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেছেন, উচ্চ আদালতে এই সংশোধনী যতবার বাতিল হবে ততবার সংসদে তা পাস করা হবে। মন্ত্রীর এই বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছে বিরোধী বিএনপি। দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ বলেছেন, মন্ত্রীর এই বক্তব্য আদালত অবমাননার সামিল। তিনি বলেন, এমনিতেই এ দেশের গণতন্ত্রের অবস্থা রুগ্ন এবং মৃতপ্রায়। সেখানে অর্থমন্ত্রীর এই বক্তব্য একটা অশুভ ইঙ্গিত বহন করছে। এই বিতর্কে যোগ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, কেউ কেউ সুপ্রিম কোর্টে ষোড়শ সংশোধনী বাতিল হওয়ায় মহা খুশি। তারা আশার আলো দেখছেন। অচিরেই তাদের আশার আলো নিভে যাবে।

অর্থমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাবে সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বিচার বিভাগের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় না নামার পরামর্শ দিয়েছেন। বলেছেন, যারাই বিচার বিভাগের ওপর হাত দিয়েছে তাদের সেই হাত পুড়ে গেছে। মওদুদ বলেন, এতে প্রমাণ হয় সুপ্রিম কোর্ট বা উচ্চ আদালত বা বিচার বিভাগের প্রতি তাদের কোন আস্থা নেই। তারা বিচার বিভাগের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে না। গত পহেলা আগস্ট বিচারপতিদের অপসারণ সংক্রান্ত ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করে দেয়া হাইকোর্টের রায় বহাল রেখে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হয়। পূর্ণাঙ্গ রায়ে বলা হয়, মানবাধিকার হুমকির মুখে। দুর্নীতি অবাধ। সংসদ অকার্যকর। ভারসাম্য নেই সরকারে। যে কারণে অনিয়ন্ত্রিত হয়ে যাচ্ছে সবকিছু। আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো পরিস্থিতি সামাল দিতে সক্ষম নয়। আর এসবের সামগ্রিক ফল হলো একটি পঙ্গু সমাজ। যেখানে একজন ভাল মানুষ ভাল কোন স্বপ্ন দেখে না। এই অবস্থায় বিচার বিভাগ বেঁচে থাকার প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছে। রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা আজকাল গুটিকয়েক লোকের একচেটিয়া ব্যবহারের বিষয়বস্তুতে পরিণত হয়েছে। আদালতের ভাষায় ক্ষমতার লোভ মহামারির মতো। ঢাকা থেকে মতিউর রহমান চৌধুরীর রিপোর্ট


XS
SM
MD
LG