অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পৌরসভার পরিচ্ছন্নতা-কর্মীদের ফ্ল্যাট দেবে সরকার 


বাংলাদেশের একজন পরিছন্নতা কর্মী রেল স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম পরিস্কার করছেন। ৯ ডিসেম্বর ২০১৩।

সমাজের কাছে অবহেলিত,বঞ্চিত পৌরসভায় কর্মরত পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের বসবাসের জন্য ফ্ল্যাট নির্মাণ করবে সরকার। তাদের মানসম্মত আবাসিক সুবিধা দিতে সারা দেশে ৩ হাজার ৪০টি ফ্ল্যাট নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।আটটি বিভাগের ৫৯টি জেলার ৬৬টি উপজেলার ৬৬টি পৌরসভায় এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। এর আগে ২০১৮ সালের ৯ই অক্টোবর ঢাকা দক্ষিণ সিটির পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের বসবাসের জন্য দয়াগঞ্জ ও ধলপুরে নির্মাণ হয়েছে ১০ তলা বিশিষ্ট নতুন চারটি ভবন। এই ধারবাহিকতায় জেলা-উপজেলা পর্যায়ের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের জন্যও উন্নত মানের আবাসনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির বৈঠকে প্রকল্পটি পাশ হয়। চলতি বছর থেকে ২০২৪ সালের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

২০১৮ সালের ৯ই অক্টোবর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের বসবাসের জন্য দয়াগঞ্জ ও ধলপুরে নির্মিত ১০ তলাবিশিষ্ট নতুন চারটি ভবন উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেই সময় তিনি দেশের জেলা-উপজেলা পর্যায়ের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের জন্যও উন্নত মানের ফ্ল্যাট নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেন। শহরের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার দায়িত্বে থাকা কর্মীদের আবাসনের কোন ব্যবস্থা সেইভাবে আলাদা করে নেই। অস্থায়ী শেডে বা বস্তি এলাকায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বসবাস ছিলো পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের। সমাজে অবহেলিত সুবিধাবঞ্চিত দরিদ্র এই জনগোষ্ঠী সব সময় শিক্ষা, চিকিৎসা থেকেও বঞ্চিত ছিলো। তাদের বসবাস করা অঞ্চলকে ‘মেথরপট্টি’ বলা হয়। পুরো পরিবেশ নোংরা, অস্বাস্থ্যকর এবং সেখানে বাংলা মদ বিক্রি হয় অবাধে। শিশুদের বেড়ে উঠার কোন পরিবেশ ছিলো না। বিরাজমান নানামুখি সংকটের কথা বিবেচনায় নিয়েই বঞ্চিত এই জনগোষ্ঠীর জন্য উন্নত আবাসনের ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

XS
SM
MD
LG