অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফগানিস্তানে সমন্বিত ত্রাণ সহায়তা চায় মুসলিম বিশ্ব


পাকিস্তানের ইসলামাবাদে, অর্গানাইজেশন অফ ইসলামিক কো-অপারেশন (OIC) কাউন্সিল অফ ফরেন মিনিস্টারস-এর অধিবেশনে বক্তব্য রাখছেন মুসলিম বিশ্বের নেতারা। রবিবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০২১।

আফগানিস্তানের ক্ষমতাসীন তালিবান সরকার রবিবার ৫৭-জাতির অর্গানাইজেশন অফ ইসলামিক কো-অপারেশন বা (ওআইসি) এর একটি বিশেষ বৈঠকে আশ্বাস দিয়েছে যে, তারা জাতীয় রাজনৈতিক অন্তর্ভুক্তি বাড়াতে এবং দেশে নারীসহ মানবাধিকারের প্রচারে আরও বেশি কাজ করবে।

তালিবান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি পাকিস্তানে দিনব্যাপী ওআইসি সম্মেলনে তার বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। যেখানে যুক্তরাষ্ট্র, চীন, রাশিয়া, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং জাতিসংঘের প্রতিনিধিরাও ছিলেন।

২০ বছর পর দেশ থেকে আমেরিকান নেতৃত্বাধীন বিদেশী সৈন্য প্রস্থানের পর, তালিবান আগস্টে পশ্চিমা-সমর্থিত সরকারের কাছ থেকে ক্ষমতা দখল করার পর থেকে, আফগানিস্তানের মানবিক বিপর্যয় রোধে সাহায্য করার জন্য এটি ছিল বৃহত্তম আন্তর্জাতিক সমাবেশ।

মুত্তাকী বলেন, “আমরা মানবাধিকার, নারীর অধিকার এবং বিভিন্ন অঞ্চলের সমস্ত সক্ষম আফগানদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করাকে আমাদের কর্তব্য বলে মনে করি। আমরা এই বিষয়ে অনেক কিছু করেছি এবং আরও পদক্ষেপ নেওয়া অব্যাহত রাখব”।

তালিবানের প্রধান এই কূটনীতিক তার সরকারের সন্ত্রাস দমনের আশ্বাস পুনর্ব্যক্ত করে বলেছেন, কোনো দেশের বিরুদ্ধে আফগান মাটি ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না।

ওয়াশিংটন এবং পশ্চিমা মিত্ররা আফগানিস্তানের প্রায় ৯.৫ বিলিয়ন ডলারের সম্পদ জব্দ করেছে, যার বেশিরভাগই ইউএস ফেডারেল রিজার্ভে রয়েছে। উপরন্তু তাঁরা আফগানিস্তানের উপর আর্থিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে এবং যুদ্ধ-বিধ্বস্ত দেশটির বৃহত্তর বিদেশী সাহায্য-নির্ভর অর্থনীতিতে মানবিক সহায়তা ছাড়া বাকি সাহায্য বন্ধ করেছে।

তালিবান নেতারা বারবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তাদের নতুন প্রশাসন তাদের আগের শাসনের কঠোর নীতি আর ফিরিয়ে আনবে না। কিন্তু দেশজুড়ে বেশিরভাগ আফগান মেয়েরা এখনও স্কুলে ফিরতে পারেনি এবং বেশিরভাগ মহিলা সরকারি কর্মচারীকে তাদের পেশাগত দায়িত্ব পুনরায় শুরু করতে বাধা দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া, সেপ্টেম্বরে সরকার ঘোষণার পর থেকে ইসলামপন্থী গোষ্ঠীটি এখনও মন্ত্রিসভায় একজন নারীকেও অন্তর্ভুক্ত করেনি।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, ওআইসি শীর্ষ সম্মেলন উদ্বোধন করার সময়, সতর্ক করে দিয়ে বলেন, আফগানিস্তানে উদ্ভূত মানবিক বিপর্যয় "সবচেয়ে বড় মানবসৃষ্ট সংকটে" পরিণত হতে পারে, যদি না বিশ্ব জরুরীভাবে প্রতিকারমূলক পদক্ষেপ না নেয়। তিনি কাবুলের উপর নিঃশর্ত নিষেধাজ্ঞার অবসান ঘটাতে এবং আফগানদের মানবিক সহায়তা প্রদানের সুবিধার্থে দেশটির সম্পদ অবমুক্ত করার আহ্বান জানান।

XS
SM
MD
LG