অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফগান নারীদের ওপর তালিবান বিধিনিষেধের প্রতি নিন্দা জানালেন পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী


আফগানিস্তানের কান্দাহারে রেড ক্রসের দেয়া খাদ্য সামগ্রী নিচ্ছেন বোরকা পরা নারীরা। (ফাইল ফটো- এএফপি)

ক্ষমতাসীন তালিবান আফগান নারীদের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করায় এর প্রতি নিন্দা জানিয়ে সোমবার পাকিস্তান সরকারের একজন মন্ত্রী ঐ বিধিনিষেধকে “পশ্চাদপদ চিন্তাধারা” এবং তার দেশের জন্য হুমকি হিসেবে অ্যাখ্যায়িত করেছেন।

তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ হুসেইন, ইসলামাবাদে একটি সমাবেশে বক্তৃতা দেবার সময় কাবুলের নবগঠিত তালিবান সরকারকে একটি “চরমপন্থী সরকার” হিসেবে বর্ণনা করেন।

হুসেইন বলেন, “আমরা আফগানিস্তানের জনগণকে সর্বতভাবে সাহায্য করতে চাই। কিন্তু নারীরা একা চলাফেরা করতে পারবেন না বা স্কুল ও কলেজে যেতে পারবেন না – এমন পশ্চাদপদ চিন্তাধারা পাকিস্তানের জন্য একটি হুমকিস্বরূপ”।

পাকিস্তানের কোন কর্মকর্তার প্রকাশ্যে তালিবানের সমালোচনা করা অত্যন্ত বিরল ঘটনা। অভিযোগ রয়েছে যে তালিবান পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর গোপন সহায়তায় আফগানিস্তানে ক্ষমতা ফিরে পেয়েছে, যে অভিযোগ ইসলামাবাদ অস্বীকার করে।

তালিবান সরকারের প্রোমোশন অফ ভার্চু এন্ড প্রিভেনশন অফ ভাইস মন্ত্রকের নারীদের জন্য নতুন নির্দেশনা জারি করার মাত্র একদিন পরই হুসেইন এসব কথা বলেন। নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী নারীরা ঘনিষ্ঠ কোন পুরুষ আত্মীয়ের সঙ্গ ছাড়া ৭২ কিলোমিটারের বেশি দূরত্বে যেতে পারবেন না। এছাড়াও এই নির্দেশনায় আফগানিস্তানের ট্যাক্সি চালকদের উপদেশ দেওয়া হয়েছে যাতে তারা শুধুমাত্র হিজাব বা মাথায় ওড়না পরিহিত নারীদেরই ট্যাক্সি পরিষেবা প্রদান করে।

মন্ত্রকের মুখপাত্র সাদিক আকিফ মাহাজের ভিওএ-কে এই বলে ব্যাখ্যা দেন যে বিধিনিষেধগুলো শরিয়া বা ইসলামী আইনসম্মত।

তালিবান কর্তৃক আফগান টেলিভিশন চ্যানেলগুলোকে নারী অভিনীত কোন নাটক বা ধারাবাহিক প্রচার না করতে বলার এবং নারী সংবাদপাঠিকাদের সংবাদ প্রচারের সময় হিজাব পরা বাধ্যতামূলক করার মাত্র কয়েক সপ্তাহের মাথায়ই এই সর্বসাম্প্রতিক বিধিনিষেধগুলোর ঘোষণা আসে।

XS
SM
MD
LG