অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

তালিবান ক্ষমতা দখলের পর কাবুল সফর করলেন কাতারের শীর্ষ কূটনীতিক


কাতারের উপ-প্রধানমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ বিন আব্দুলরহমান আল-থানি (মাঝে) কাবুলের বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর একটি গাড়িতে ওঠার আগে। সেপ্টেম্বর ১২, ২০২১।

কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী, যিনি একইসাথে দেশটির ডেপুটি প্রিমিয়ার, রোববার এক সংক্ষিপ্ত সফরে আফগানিস্তান যান। ১৫ আগস্ট তালেবানের ক্ষমতা গ্রহণের পর, তিনিই শীর্ষ কোনও কূটনীতিক যিনি ওই দেশটি সফর করলেন।

একজন তালিবান কর্মকর্তা টুইট করেছেন, শেখ মোহাম্মদ বিন আবদুল রহমান আল-থানি নতুন আফগান প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে দেখা করেছেন, যদিও তাদের আলোচনার ব্যাপারে বিস্তারিত কিছুই প্রকাশ করা হয়নি।

নতুন প্রধানমন্ত্রী মোল্লা মোহাম্মদ হাসান আখুন্দের সাথে শেখ মোহাম্মদ এর সাক্ষাতের ছবি প্রকাশ করেছে তালিবান, যখন সাবেক প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাইয়ের সাথে তার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে।

কাতার দীর্ঘদিন ধরে আফগানিস্তানে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করে আসছে। তাঁরা সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের অধীনে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে তালেবানদের আলোচনার আয়োজন করে। এরপর এখন কাজ করছে প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির ক্ষমতাচ্যুত আফগান সরকারের সাথে।

এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন দখলদারিত্বের শেষ সপ্তাহে হাজার হাজার আফগানদের, অন্যান্য দেশে সরিয়ে নেয়ার প্রক্রিয়াতেও তাঁরা সাহায্য করেছে।

কোনো দেশই এখনো নতুন তালিবান সরকারকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেয়নি। এবং ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত কট্টর ইসলামপন্থীদের প্রথম শাসন আমলে মাত্র তিনটি দেশ তাদের স্বীকৃতি দিয়েছিল।

XS
SM
MD
LG