অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশে নারীদের বিরুদ্ধে ক্রমবর্ধমান সহিংসতা নিয়ে জাতিসংঘ গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে


অব্যাহত নারী নির্যাতন এবং ধর্ষণ ও গন ধর্ষণের মত নারীর প্রতি ভয়াবহ সহিংসতার বিরুদ্ধে আজ বৃহস্পতিবার চতুর্থ দিনেও প্রতিবাদ-বিক্ষোভে উত্তাল ছিল বাংলাদেশ।

দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভকারিরা আজও নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে সরকারের ব্যর্থতার সমালোচনা করে বলেছেন বিচারহীনতার কারনেই প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় দুর্বৃত্তরা অব্যাহত ভাবে এধরণের অপরাধ করছে।সাধারণ শিক্ষার্থী এবং সর্বস্তরের মানুষ নারীর প্রতি সহিংসতার বিরুদ্ধে ঢাকার শাহাবাগ চত্তরে আজও বিক্ষোভ করেছেন। নারীর প্রতি সহিংসতার বিরুদ্ধে দেশব্যাপী অব্যাহত প্রতিবাদ-বিক্ষোভের মধ্যেই দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে নারী নির্যাতন এবং ধর্ষণের নতুন নতুন খবর পাওয়া যাচ্ছে প্রায় প্রতিদিনই। খোদ রাজধানী ঢাকাতেই চার শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে আজ এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এদিকে, বাংলাদেশে নারীদের বিরুদ্ধে ক্রমবর্ধমান সহিংসতা নিয়ে জাতিসংঘ গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে এসকল ঘটনাকে গুরুতর অপরাধ এবং মানবাধিকারের মারাত্মক লঙ্ঘন বলে বর্ণনা করেছে । ঢাকায় সংস্থাটির আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সেপ্পো তাঁর টুইটার একাউন্টে দেয়া এক বিবৃতিতে জাতিসংঘের এ উদ্বেগের কথা জানিয়ে বলেছেন নোয়াখালীর গৃহবধূকে ধর্ষণ, নির্যাতন ও তার ভিডিও প্রকাশের ঘটনা সামাজিকভাবে নারী বিদ্বেষকে ফুটিয়ে তুলেছে। বিবৃতিতে বলা হয় নোয়াখালীর ঘটনাটি আবারও প্রমাণ করেছে এটি কোনও নিছক বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। যারা বিচারের দাবিতে পথে নেমেছেন, তাঁদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে এতে জানানো হয় জাতিসংঘ ন্যায়বিচারের দাবিতে সাধারণ জনগণ এবং সুশীল সমাজের পাশে দাঁড়াচ্ছে। জাতিসংঘ ভুক্তভোগী এবং সাক্ষীদের সমর্থন ও সুরক্ষা প্রদান এবং বিচারের ক্ষেত্রে দ্রুততা আনতে ফৌজদারি বিচার ব্যবস্থার জরুরি সংস্কারের পক্ষে বলে উল্লেখ করে বিবৃতিতে বলা হয় এ বিষয়ে জাতিসংঘ বাংলাদেশ সরকারকে সহায়তা করতে প্রস্তুত আছে। নারী সুরক্ষার জন্য অসংখ্য আইন ও কর্মপরিকল্পনা কিভাবে বাস্তবায়িত হচ্ছে, সে সম্পর্কে জবাব দেওয়ার ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা সুনিশ্চিত করার কোনও বিকল্প নাই বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

সরাসরি লিংক


XS
SM
MD
LG