অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

শবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশ নিয়ে কেরলে ধর্মীয় গুরুর আশ্রমে হামলা


assram attack

দক্ষিণ ভারতের কেরলের শবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়কে স্বাগত জানানোয় কেরলের এক ধর্মীয় গুরুর আশ্রমে হামলা চালিয়ে আগুন ধরিয়ে দিল দুষ্কৃতীরা।

শবরীমালা মন্দির নিয়ে এখনও উত্তপ্ত রয়েছে গোটা কেরল। সুপ্রিম কোর্টের রায়ের বিরোধিতা করে ক্ষোভ-বিক্ষোভ চলছেই। শরবীমালায় মহিলাদের প্রবেশের বিরুদ্ধে পাল্লা ভারী প্রথম থেকেই। কিন্তু তার মধ্যেও রাজ্যেরই একটা অংশ সুপ্রিম কোর্টের রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন। তাঁদের মধ্যেই এক জন স্বামী সন্দীপানন্দ গিরি। তিরুঅনন্তপুরমে একটি আশ্রম চালান তিনি। সেই আশ্রমেই হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল শুক্রবার ভারতীয় সময় গভীর রাত আড়াইটে নাগাদ দুটো গাড়ি ও একটি স্কুটারে করে দুষ্কৃতীরা এসেছিল। বেশ কিছু ক্ষণ তাণ্ডব চালিয়ে আশ্রমে আগুন জ্বালিয়ে দেয় তারা। এই ঘটনার পরই আজ শনিবার সকালে আশ্রম পরিদর্শনে যান কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। এই হামলার তীব্র নিন্দা করে তিনি বলেন, “মতাদর্শগত ভাবে মেনে উঠতে না পেরে এ ভাবে হামলা চালানো হচ্ছে। যাঁরা আইন নিজেদের হাতে তুলে নিচ্ছেন তাঁদের কোনও ভাবেই রেয়াত করা হবে না। প্রসঙ্গত বলা যেতে পারে অতি সম্প্রতি দশ বছর বয়সী থেকে পঞ্চাশ বছর বয়সী পর্যন্ত মহিলারা যে শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবে এ ব্যাপারে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পরই শবরীমালায় পুজো দিতে গিয়ে প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়ে ফিরে আসতে হয়েছে এক মহিলা সাংবাদিক এবং আরও এক মহিলাকে। শবরীমালা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পরেও রাজ্যের এই উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ে এমনিতেই প্রবল চাপে পিনারাই বিজয়ন সরকার। তার উপর তিরুঅনন্তপুরমে আশ্রমে এই হামলার ঘটনায় আরও চাপে পড়ল কেরল রাজ্য সরকার বলে ওয়াকিবহাল মহলের অভিমত।

কলকাতা সংবাদদাতা পরমাশিষ ঘোষ রায় জানাচ্ছেন বিস্তারিত

please wait

No media source currently available

0:00 0:00:59 0:00

XS
SM
MD
LG