অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সুদানের দারফুরে জাতিসংঘের খাদ্য সহায়তার গুদাম লুট করেছে বন্দুকধারীরা


ইথিওপিয়ার টিগ্রায় অঞ্চলে চলমান সহিংসতা থেকে পালিয়ে আসা একজন ইথিওপিয়ান শরণার্থী, সুদান-ইথিওপিয়া সীমান্তে উম-রাকোবা ক্যাম্পে, বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির তাঁবুর পাশ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছেন। ২৩ নভেম্বর, ২০২০।

সুদানের পশ্চিম অঞ্চলে চলমান সহিংসতার মধ্যে বন্দুকধারীরা দারফুরে প্রায় বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচীর বা ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম (ডব্লিউএফপি) এর গুদাম লুট করেছে বলে, বুধবার দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। ঐ গুদামে ১,৯০০ মেট্রিক টন খাদ্য ছিল ।

উত্তর দারফুর রাজ্যের রাজধানী এল ফাশারের বাসিন্দারা মঙ্গলবার গভীর রাতে গুদামের কাছে প্রচন্ড বন্দুকযুদ্ধের খবর দিয়েছে। হামলার পর স্থানীয় কর্তৃপক্ষ শহরে রাতের বেলা কারফিউ জারি করেছে বলে জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সুনা।

স্থানীয় বাসিন্দা মোহাম্মদ সালেম বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, “আমরা প্রচন্ড গোলাগুলির শব্দ শুনেছি”।

ডব্লিউএফপি’র একজন কর্মকর্তা বলেছেন, সংস্থাটি “গুদাম থেকে যে পরিমাণে খাদ্য চুরি হয়েছে, তার একটি অডিট করছে , সেখানে প্রায় ১,৯০০ মেট্রিক টন খাদ্যপণ্য ছিল”। ওগুলো সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ মানুষের জন্য জীবন রক্ষার উদ্দেশ্যে রাখা হয়েছিল।

“সুদানে প্রতি তিনজনের মধ্যে একজনের মানবিক সহায়তা প্রয়োজন”, বলেছেন সুদানের জন্য জাতিসংঘের মানবিক সমন্বয়কারী খার্দিয়াতা লো এনদিয়ায়ে। তিনি বলেন, “মানবিক সহায়তার খাদ্য চুরি করা কখনই কারো লক্ষ্য হওয়া উচিত নয়”।

দারফুরের গভর্নর মিনি মিনাউই টুইট করে এই হামলাকে "বর্বর কাজ" বলে নিন্দা করেছেন এবং বলেছেন, দায়ীরা "বিচারের মুখোমুখি হবে।"

গত বছর প্রধান বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলির সাথে একটি শান্তি চুক্তির অধীনে দারফুরের মূল সংঘাত কমে গেলেও সহিংসতা এখনো অব্যাহত রয়েছে।

ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম) এর মতে, কয়েক হাজার মানুষ তাদের বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছে।

জাতিসংঘের মানবিক সমন্বয় বিষয়ক অফিসের তথ্য মতে, আগামী বছর ১ কোটি ৪০ লক্ষেরও বেশি সুদানবাসীর মানবিক সহায়তার প্রয়োজন হবে, যা এক দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ।

XS
SM
MD
LG