অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সুদানে অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে হত্যার নিন্দা জানালেন জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনার


সুদানের রাজধানী খার্তুমের রাস্তায়, সে দেশের সামরিক বাহিনীর সাম্প্রতিক ক্ষমতা দখল এবং বেসামরিক সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার বিরুদ্ধে ব্যানার এবং জাতীয় পতাকা বহন করে জনতার বিক্ষোভ। ৩০ অক্টোবর, ২০২১।

গত ২৫ অক্টোবরের সামরিক অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনী ১৫ জনকে হত্যা করার একদিন পর, সুদানী বিক্ষোভকারীদের উপর সামরিক দমন-পীড়নের নিন্দা করেছেন, জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনার।

ক্ষমতা দখলের পর থেকে বুধবারের সহিংসতা ছিল সবচেয়ে মারাত্মক। এবং সাম্প্রতিক গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভে এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৯-এ পৌঁছেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেছেন, নিরাপত্তা বাহিনী তাজা গোলাবারুদ এবং কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার ক’রে, খার্তুমসহ অন্যান্য শহরের বিক্ষোভ ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাচেলেট বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে বলেছেন, তার কার্যালয় বারবার সুদানের নিরাপত্তা বাহিনী এবং সেনাবাহিনীকে "বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে অপ্রয়োজনীয় এবং অসামঞ্জস্যপূর্ণ ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকতে" বলে আসছে।

ব্যাচেলেট বলেন, “নিরস্ত্র বিক্ষোভকারীদের বিশাল ভিড়ের মধ্যে গুলি চালিয়ে ডজন ডজন লোককে হত্যা করা এবং আরও অনেককে আহত করা নিন্দনীয় , স্পষ্টতই এর লক্ষ্য ছিল জনগণের ভিন্নমত প্রকাশকে স্তব্ধ করা এবং এহেন আচরণ আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের চরম লঙ্ঘন”।

নির্ভরযোগ্য চিকিৎসা সূত্রের বরাত দিয়ে জাতিসংঘ বলেছে, বুধবারের বিক্ষোভে ১০০ জনেরও বেশি বিক্ষোভকারী আহত হয়েছে, যার মধ্যে ৮০ জনের শরীরের উপরের দিক ও মাথা গুলিবিদ্ধ হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, তাদের ৮৯ জন কর্মকর্তাও এতে আহত হয়েছেন।

সুদানে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনা নিয়ে সামরিক ও বেসামরিক নেতাদের মধ্যে কয়েক সপ্তাহের ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যে এই অভ্যুত্থান ঘটে।

XS
SM
MD
LG