অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

প্রথমবারের মত একটি প্রাদেশিক রাজধানীর দখল নিল তালিবান


জারাঞ্জ,নিমরুজ প্রদেশ,আফগানিস্তান

শুক্রবার তালিবান জঙ্গিরা ইরানের সীমান্তবর্তী দক্ষিণ -পশ্চিম আফগানিস্তানের নিমরুজের প্রাদেশিক রাজধানী জারাঞ্জ দখল করে। এটি আফগানিস্তানের প্রথম শহর যার পতন ঘটলো তালিবানের কাছে।

প্রাদেশিক সহকারী গভর্নর হাজী নবী বারাহওয়ে ভিওএকে নিশ্চিত করেছেন যে তালিবান শহরটি দখল করেছে এবং আফগান নিরাপত্তা বাহিনী নিমরুজ প্রদেশের দেলারাম জেলায় সরে গেছে। হাজী নবী বারাহাওয়ে ভিওএকে বলেন, "জারঞ্জ শহর তালিবানদের হাতে চলে গেছে।তালিবান গভর্নরের কার্যালয়ের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। আফগান নিরাপত্তা বাহিনী ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়েছে। ন্যাশনাল ডাইরেক্টরেট অব সিকিউরিটি(এনডিএস) সৈন্যরা এক ঘণ্টা তালিবানের সাথে লড়াই করেছে। বর্তমানে সরকারি বাহিনী শুধুমাত্র চাহার বুর্জাক জেলা নিয়ন্ত্রণ করছে।"

তিনি বলেননি যে এনডিএস বাহিনী আত্মসমর্পণ করেছে কিনা বা পিছু হটেছে কিনা।তিনি আরও বলেন যে প্রদেশের আরও পাঁচটি জেলার মধ্যে তিনটির ওপর তালিবান নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। এ ছাড়া, তালিবান শুক্রবার আফগান সরকারের শীর্ষ মিডিয়া কর্মকর্তাকে কাবুলে হত্যা করেছে।

সরকারী সংবাদ মাধ্যম ও তথ্য কেন্দ্রের প্রধান দাওয়া খান মীনাপাল আফগান রাজধানীর বিশেষ নিরাপত্তা অঞ্চলের ভেতরে আক্রমণের শিকার হন।

গণমাধ্যমকে পাঠানো একটি সংক্ষিপ্ত বিবৃতিতে তালিবান হামলার দায় স্বীকার করেছে।বিদ্রোহীদের দ্বারা পরিচালিত উর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তাদের ধারাবাহিক হত্যাকাণ্ডের এটি সর্বশেষ ঘটনা।

কাবুলে ভারপ্রাপ্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত রস উইলসন মীনাপাল হত্যার নিন্দা জানিয়েছেন। উইলসন টুইটারে লিখেছেন, "বন্ধু এবং সহকর্মী দাওয়া খান মীনাপালের হত্যাকাণ্ডে আমরা মর্মাহত। তার পুরো কর্মজীবন আফগানদের আফগানিস্তান সম্পর্কে সত্য তথ্য প্রদানের উপর নিবদ্ধ ছিল।এই হত্যাকাণ্ড আফগানদের মানবাধিকার ও বাক স্বাধীনতার প্রতি আঘাত।"

তালিবানের মুখপাত্র কারী আহমদ ইউসুফ আহমদি টুইট করে জানান, প্রাদেশিক গভর্নরের কার্যালয়,প্রাদেশিক পুলিশ চত্বর এবং নিমরুজের অন্যান্য সরকারি ভবন তাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

তালিবানপন্থীদের টুইটারে সরকারি ভবনের সামনে জঙ্গিদের ছবি ও ভিডিও দেখানো হয়েছে।

আফগান সাংবাদিক বিলাল সারোয়ারি বলেন, মনে হচ্ছে তালিবান একই কৌশল দেশের অন্যান্য অঞ্চলেও ব্যবহার করেছে। তারা সময় থাকতেই উপজাতীয় নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করেছে।

সারোয়ারি বলেন, " জানা গেছে, উপজাতীয় শীর্ষ নেতারা এবং অন্যান্যরা প্রাদেশিক সরকারকে বিনা লড়াইয়ে তালিবানে কাছে আত্মসমর্পণ করার জন্য অনুরোধ করেছিলেন।"

তিনি আরো বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে শহরের কেন্দ্রস্থলে কেউ তালিবানের পতাকা উত্তোলন করে আতঙ্ক সৃষ্টি করে।

সামাজিক মাধ্যমে অন্তত একটি ভিডিওতে দেখা গেছে যে নিমরুজ কারাগার থেকে বন্দীরা পালিয়ে যাচ্ছে, অন্যটিতে দেখা গেছে যে জারাঞ্জে লুটপাট হচ্ছে।

XS
SM
MD
LG