অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি দীর্ঘ ২৫ বছরেও পূর্ণ বাস্তবায়ন না হওয়ায় হতাশ সন্তু লারমা


পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি দীর্ঘ ২৫ বছরেও পূর্ণ বাস্তবায়ন না হওয়ায় হতাশ সন্তু লারমা

দীর্ঘ ২৫ বছরেও পার্বত্য চুক্তি পূর্ণ বাস্তবায়ন না হওয়ায় পার্বত্য শান্তি চুক্তি আর বাস্তবায়ন হবে না বলে হতাশা প্রকাশ করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান ও পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সভাপতি জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা ওরফে সন্তু লারমা।

শুক্রবার (২৩ ডিসেম্বর) সকালে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির ২৫ বছর বর্ষপূর্তি উপলক্ষে জনসংহতি সমিতির সহযোগী ছাত্র সংগঠন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ আয়োজিত প্রবন্ধ প্রতিযোগিতার আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ হতাশা ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি এই চুক্তি এমনিতেই আর পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়িত হবে না। পার্বত্য চুক্তি বর্তমানে মুখ থুবড়ে পড়ে আছে। এই চুক্তি বাস্তবায়নে সংগ্রাম অনিবার্য, সংগ্রামের মাধ্যমে এই চুক্তি পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের পথ সৃষ্টি করতে হবে’।

সন্তু লারমা বলেন, ‘নানান সংগ্রাম ও প্রতিকূল অবস্থার মধ্য দিয়ে তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকারের সঙ্গে পার্বত্য চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। পার্বত্য চুক্তি এটা সাধারণ কোনো দলিল নয়। এটি এই পার্বত্য এলাকার জুম্ম জনগণের অধিকারের সনদ। পাহাড়ের অধিকাংশ জুম্ম জনগণ পার্বত্য চুক্তি সম্পর্কে তাদের কোনো জ্ঞান নেই। তারা এই বিষয়ে জ্ঞান অর্জনের আগ্রহও প্রকাশ করেন না। পার্বত্য শান্তিচুক্তির বিষয়ে প্রত্যেকের জানা দরকার। শুধু চুক্তি নয় সংবিধানে মানবাধিকার বিষয় সম্পর্কেও জানা অতীব প্রয়োজন’।

চুক্তি বাস্তবায়নের সংগ্রামে সকল জুম্ম জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে সন্তু লারমা বলেন, ‘পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ যে বিষয় নিয়ে প্রবন্ধ প্রতিযোগিতা করেছে আমি দেখেছি যারা এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছে তাদের আরও এই বিষয় নিয়ে পড়ালেখায় মনোনিবেশ করতে হবে। চুক্তি সম্পর্কে পার্বত্য এলাকা জুম্ম জনগণ আরও জানা দরকার। দীর্ঘ লড়াই সংগ্রামের মধ্য দিয়ে পার্বত্য এলাকার জুম্ম জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য আন্দোলন হয়েছে। চুক্তির পূর্বেও যে পরিস্থিতি ছিল এখনো তা বহাল রয়েছে। কোনো পরিবর্তন হয়েছে বলে আমি মনে করি না’।

অনুষ্ঠানে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক সদস্য নিরুপা দেওয়ান বলেন, ‘ছাত্রদের নিজের অধিকার আদায়ের জন্য অবশ্যই রাজনীতি করার প্রয়োজন আছে। রাজনীতির পাশাপাশি অবশ্যই পড়ালেখায় মনোনিবেশ করতে হবে। আমাদের মধ্যে কয়জনে পার্বত্য চুক্তি সম্পর্কে জানে? এই বিষয়ে প্রত্যেকের জানা থাকা দরকার। শুধু চুক্তি নয় সংবিধানে মানবাধিকার বিষয়েও জানা জরুরি’।

আলোচনা সভা শেষে প্রবন্ধ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রবন্ধ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক জিকো চাকমা, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সুমন মারমা ও পার্বত্য চট্টগ্রাম আদিবাসী লেখক ফোরামের সাবেক সভাপতি শিশির কুমার চাকমা প্রমুখ।

XS
SM
MD
LG