অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নওগাঁয় নাশকতা ও বিস্ফোরক মামলায় বিএনপির ৮ নেতাকর্মীকে কারাগারে প্রেরণ


বিএনপির ৮ নেতাকর্মীকে কারাগারে প্রেরণ

নাশকতা ও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে করা পৃথক দুটি মামলায়, বাংলাদেশের নওগাঁ জেলার মান্দা ও মহাদেবপুর উপজেলা বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের আট নেতা-কর্মীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) দুপুরে নওগাঁ জেলা ও দায়রা জজ আবু শামীম আজাদের আদালতে ঐ আটজন জামিনের জন্য আবেদন করেন। আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

অভিযুক্ত পক্ষের আইনজীবী আব্দুর রাজ্জাক ও বিশ্বজিৎ সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেন। নওগাঁ সদর উপজেলায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে করা মামলায় কারাগারে পাঠানো নেতাকর্মীরা হলেন, জেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জেড এইচ খান মানিক ও দেওয়ান মোস্তাকিন আহম্মেদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি শহিদুল ইসলাম ও জেলা ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান বাদশা।

মান্দা উপজেলা বিএনপির নেতা-কর্মীরা হলেন; মান্দা উপজেলা বিএনপির সদস্য মামুনুর রশিদ, গনেশপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক বকুল চৌধুরী, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক সামসুল ইসলাম ও গনেশপুর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মিঠুন হোসেন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ২২ নভেম্বর সন্ধ্যায় নওগাঁ শহরের কেডির মোড় এলাকায় আস্তান মোল্লা কলেজের সামনের সড়কে ককটেল বিস্ফোরণ হয় এবং দুটি অবিস্ফোরিত ককটেল উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জেলা ছাত্রলীগের সদস্য মোশাররফ হোসেন বাদী হয়ে নওগাঁ সদর মডেল থানায় বিএনপি ও এর অঙ্গ-সংগঠনের ১২ জনের নাম উল্লেখ করে, অজ্ঞাত ৪০-৫০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

ঐ মামলায় এজহারভুক্ত চার অভিযুক্ত মঙ্গলবার দুপুরে নওগাঁ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে জামিনের জন্য আবেদন করেন। আদালত তাঁদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

পুলিশ সূত্রে আরও জানা যায়, ২৫ নভেম্বর রাতে উপজেলার কয়াপাড়া কামারকুড়ি উচ্চবিদ্যালয় মাঠে অভিযান চালিয়ে মান্দা থানার পুলিশ, ককটেলসহ কিছু দেশি অস্ত্র উদ্ধার করে। ঐ ঘটনায় মান্দা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জাহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের ১০ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা হিসেবে ৫০ থেকে ৬০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ঐ মামলার এজাহারভুক্ত পাঁচ জন নওগাঁ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে জামিনের জন্য আবেদন করেন। আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

চলতি সপ্তাহে নাশকতা ও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে করা নওগাঁ সদর, মান্দা, মহাদেবপুর, পত্নীতলা ও বদলগাছী থানার বিভিন্ন মামলায় অভিযুক্ত বিএনপি ও এর অঙ্গ-সংগঠনের ৩০ জন নেতাকর্মী আদালতে হাজির হয়ে জামিনের জন্য আবেদন করেন।আদালত তাদের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন।

নাটোরে ১৯ বিএনপি নেতাকর্মী কারাগারে

এদিকে, নাটোরে বিস্ফোরক আইনে যুবলীগ নেতার দায়ের করা মামলায়, বিএনপির ১৯ নেতাকর্মীকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে নাটোর সদর উপজেলার দিঘাপতিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম আজাদসহ ২৬ বিএনপি নেতাকর্মী নাটোরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো. শরীফ উদ্দীনের আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন জানান।

শুনানি শেষে বিচারক সাতজনের জামিন মঞ্জুর করেন। আর, ১৯ জনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন অভিযুক্ত পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আলী আজগর খান।

বিএনপি রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশের আগে, ২০২২ সালের ২১ নভেম্বর রাতে নাটোর সদর উপজেলার দিঘাপতিয়া ইউনিয়নের ডাঙ্গাপাড়া এলাকায় ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে। এ ঘটনায় ঐ ইউনিয়নের বিএনপির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ ৩০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন স্থানীয় যুবলীগ নেতা রবিউল প্রামানিক।

XS
SM
MD
LG