অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মানবদেহে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা প্রয়োগের অনুমতি দিয়েছে বাংলাদেশের ঔষধ প্রশাসন


ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার যে ৫০ লাখ ডোজ টিকা সোমবার ঢাকা এসে পৌঁছেছে তা মানবদেহে প্রয়োগের অনুমতি দিয়েছে বাংলাদেশের ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান মঙ্গলবার ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়ে বলেন অনুমোদন দেয়ার আগে টিকার প্রতিটি লটের নমুনা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পরীক্ষা করা হয়েছে। তিনি বলেন টিকা ঢাকা বিমান বন্দরে পৌছার পর থেকে তা সংরক্ষণ করা এবং তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ ঠিক মত হচ্ছে কিনা তা পর্যবেক্ষণ করছেন ঔষধ প্রশাসনের কর্মকর্তারা। মাহবুবুর রহমান বলেন অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি এই টিকা ব্রিটেনের সর্বোচ্চ সংস্থা ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দিয়েছে এবং দেশটিতে এই টিকা প্রয়োগ করা হচ্ছে। ভারতের সিরাম ইন্সটিটিউট বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানদণ্ড অনুযায়ী একটি বিশ্বমানের টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান এবং গত ১৬ই জানুয়ারি থেকে ভারতে এই ভ্যাকসিনের প্রয়োগ হচ্ছে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন ভারতের সেই সকল কাগজ পত্রও পরীক্ষা করা হয়েছে। ভারতের সিরাম ইন্সটিটিউট একটি চুক্তির আওতায় বাংলাদেশকে আগামী জুন মাসের মধ্যে মোট তিন কোটি ডোজ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা সরবরাহ করবে।

সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী আগামীকাল বুধবার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে প্রথম একজন নার্সকে এবং পরে ২৪ জন ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, সাংবাদিক, সামরিক বাহিনী ও পুলিশকে করোনার ভ্যাকসিন প্রয়োগের মধ্য দিয়ে টিকাদান কর্মসূচীর উদ্বোধন করা হবে। তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহেদ মালেক আজ সাংবাদিকদের বলেছেন আগামী ৭ই ফেব্রুয়ারি থেকে সারাদেশে একযোগে টিকাদান কর্মসূচি শুরু করা হবে। ভ্যাকসিনের বিষয়ে কাউকে বিভ্রান্তিতে না পড়ার আহবান জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, লন্ডন থেকে বাংলাদেশ বিমান যোগে করোনার নেগেটিভ টেস্ট সনদপত্র নিয়ে সিলেটে আসা ২৮ জন যাত্রীর প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন শেষে পরীক্ষার পর করোনা পজিটিভ হওয়ায় সেখানে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। তবে শনাক্ত হওয়া যাত্রীরা ব্রিটেনে পাওয়া করোনার নতুন ধরনের স্ট্রেইনে সংক্রমিত কিনা সে সম্পর্কে কিছু জানা না গেলেও এ ঘটনা নিয়ে সিলেট শহরবাসির মধ্যে চাপা আতঙ্ক বিরাজ করছে বলে সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে। স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন করোনা আক্রান্ত যাত্রীদের একটি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। অপরদিকে, সরকারের স্বাস্থ্যবিভাগের দেয়া আজকের তথ্য মোতাবেক দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৪ জন করোনা রোগী প্রাণ হারিয়েছেন এবং অপর ৫১৫ জন নতুন করনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন।

XS
SM
MD
LG