অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টার  অভিযোগে চট্টগ্রামে এক তরুণ গ্রেপ্তার


সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের লক্ষ্যে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে আটক হওয়া রিমন শিল- ফটো- র‍্যাব -৭

বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার লক্ষ্যে অপপ্রচার চালানোর অভিযোগে বন্দর নগরী চট্টগ্রামে এক তরুণকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশান ব্যাটেলিয়ন র‍্যাব।

রাজধানী ঢাকার পল্লবীর ‘সাহিনুদ্দীন’ হত্যাকাণ্ডের নৃশংস ভিডিও ফেসবুকে নোয়াখালীর ‘যতন সাহা’ হত্যাকাণ্ড বলে প্রচার করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার অভিযোগে চট্টগ্রামের কোতোয়ালি মোড় থেকে রিমন শীল নামের ওই তরুণকে রোববার গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। র‍্যাব ৭ চট্টগ্রামের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এম এ ইউসুফ রিমন শিলের গ্রেফতারের খবরটি ভয়েস অফ অ্যামেরিকার কাছে নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেয়ার জন্য কোতোয়ালি থানায় তাঁকে হস্তান্তর করা হয়েছে।

র‍্যাব-৭ চট্টগ্রামের সহকারী পরিচালক নুরুল আবছার সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, গত ১৬ই মে বিকেলে পল্লবীর সিরামিকস ফটকের কাছে দুর্বৃত্তরা শিশুপুত্রের সামনে বাবা সাহিনুদ্দিনকে কুপিয়ে হত্যা করে। সম্প্রতি সেই ভিডিও ক্লিপ নোয়াখালীর যতন সাহার বলে ফেসবুকে আপলোড করে গুজব ছড়িয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার অপচেষ্টা করা হয়। এর আগে র‍্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল ভারতের দুটি আইডি থেকেও সাহিনুদ্দিন হত্যার ভিডিও ক্লিপটি নোয়াখালীর যতন সাহার বলে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়া হয়।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে রিমন শীলকে গ্রেপ্তারের পর র‍্যাব বলেছে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি সাহিনুদ্দীন হত্যাকাণ্ডের ভিডিও নোয়াখালীর যতন সাহা হত্যাকাণ্ড বলে চালিয়ে দেয়ার অপপ্রচারে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। এই ভিডিওটি সর্বপ্রথম ফেসবুকে তিনিই আপলোড করেছেন বলে স্বীকার করেছেন বলে র‍্যাবকে উদ্ধৃত করে খবরে উল্লেখ করা হয়। পরে ওই ভিডিওটি ফেসবুকে পুনঃপ্রচারের অভিযোগে রাজধানীর বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক রুমা সরকারকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব এবং তাঁর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়।

XS
SM
MD
LG