অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষ্যে বাংলাদেশে চলছে বিশেষ টিকাদান কর্মসূচি  


বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

একযোগে ৭৫ লাখ লোককে কোভিড-১৯ টিকাদান শুরু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে এই কর্মসূচি নেয়া হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ও টিকা বিতরণ কার্যক্রমের সমন্বয়ক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেছেন, সারা দেশের তথ্য পাওয়া যায়নি। কোনো কোনো কেন্দ্রে লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়েছে । আবার কোনো কেন্দ্রে চলমান রয়েছে। একদিনে লক্ষ্যমাত্রার টিকা দিতে না পারলে পরে তা দেয়া হবে। তবে, গ্রামে-গঞ্জে সকাল থেকেই কেন্দ্রে কেদ্রে প্রচণ্ড ভিড় লক্ষ্য করা যায়। রাজধানীতে ভিড় কম ছিল।

গত ৭ই আগস্ট গণটিকাদান অভিযানে একদিনে ৩২ লাখ টিকা দেয়া হয়। তখন প্রতি ইউনিয়নের জন্য বরাদ্দ ছিল ৬০০ ডোজ টিকা। এবারের ক্যাম্পেইনে প্রতি ইউনিয়নে ১৫০০ ডোজ বরাদ্দ করা হয়েছে। স্বাস্থ্য দপ্তরের খবর, মঙ্গলবার সারা দেশে ৪ হাজার ৬০০ ইউনিয়ন, ১ হাজার ৫৪টি পৌরসভা, সিটি করপোরেশনের ৪৪৩ টি ওয়ার্ডে এ টিকাদান কর্মসূচি চালু ছিল।

পঁচিশ বছরের বেশি যাদের বয়স, যারা অনেক আগে নিবন্ধন করেছিলেন তারা টিকা পেয়েছেন। মোবাইলে বার্তা পাঠিয়ে তাদেরকে আগেই জানানো হয়। বাংলাদেশে গত ৭ই ফেব্রুয়ারি টিকাদান শুরু হয়। মাঝখানে আগস্টের শুরুর দিকে ৬ দিনব্যাপী চলে গণটিকাদান। এসময় ৫০ লাখ মানুষকে টিকা দেয়া সম্ভব হয়। বর্তমানে ১ কোটি ৪৪ লাখ টিকা মজুদ রয়েছে। নিবন্ধন করেছেন প্রায় সাড়ে ৪ কোটি মানুষ।

ওদিকে ২৮শে সেপ্টেম্বর থেকে বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাবে টেস্ট শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত শুরু না হওয়ায় এমিরেটসের একটি ফ্লাইট বাতিল করে দেয়া হয়। সংযুক্ত আরব-আমিরাতের দেয়া শর্ত অনুযায়ী এই ল্যাব স্থাপনের কথা। তারা জানিয়ে দিয়েছে, বিমানবন্দরে টেস্ট ছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। হাজার হাজার দুবাই প্রবাসী এ কারণে দেশে আটকা পড়েছেন। তাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে। টিকিটও তারা বারবার বদল করেছেন।

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুর রহমান বলেছেন- আশা করছি আরটি-পিসিআর ইস্যুতে যে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে তা দু’ একদিনের মধ্যে সমাধান হয়ে যাবে।

কোভ্যাক্সের আওতায় ফাইজার-বায়ো-এন-টেকের তৈরি আরও ২৫ লাখ ডোজ করোনার টিকা দেশে পৌঁছেছে। এ নিয়ে ফাইজার-বায়ো-এন-টেকের ৩৬ লাখ ৪ হাজার ৪৮০ ডোজ টিকা পেল বাংলাদেশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। মঙ্গলবার ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৩১০ জন। আর সোমবার মারা যান ২৫ জন। আক্রান্ত হয়েছিলেন ১ হাজার ২১২ জন।

XS
SM
MD
LG