অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারত ও নেপালের মধ্যে সীমান্তের দৈর্ঘ্য পরিবর্তন হতে পারে


সংবাদ সংস্থা সূত্রের খবর ভারত ও নেপালের মধ্যে এক হাজার সাতশো একান্ন কিলোমিটার সীমান্তের দৈর্ঘ্য পরিবর্তন হতে পারে। কারণ পূর্ববর্তী সীমানা সমীক্ষার সময় বাদ পরা বেশ কয়েকটি এলাকা পুনর্বিন্যাসকালে যোগ করা হবে। আন্তর্জাতিক সীমানা জরিপের সঙ্গে যুক্ত কর্তারা জানান, ব্রিটিশ শাসনের অনেক আগেই এই সীমান্তের দৈর্ঘ্য নির্ধারণ করা হয়েছিল। পরবর্তীতে বোঝা যায় যে সীমান্তের মানচিত্র নিরপেক্ষভাবে তৈরি করা হয়নি এবং কিছু এলাকা সীমান্ত মাপার প্রক্রিয়া থেকে বাদ পড়েছে। দু’দেশের সংশ্লিষ্ট সার্ভেয়ার জেনারেলের নেতৃত্বে একটি ‘ওয়ার্কিং গ্রুপ’ ঊন্নিশো আশি সাল থেকে দুহাজার সাত সালের মধ্যে পরিচালিত সব সমীক্ষা বিশ্লেষণ করে সীমানা নির্ধারণের সিদ্ধান্ত নেয়। এসব সমীক্ষার পর সীমান্ত এলাকার যে মানচিত্র তৈরি করা হয় তার ভিত্তিতে বর্তমানে সীমানা নির্ধারণের চেষ্টা হচ্ছে।

দেরাদুনের সার্ভে দপ্তরের ডেপুটি সার্ভেয়ার জেনারেল টেকনিক্যাল -পঙ্কজ মিশ্র বলেছেন মৌলিক কাজগুলি সম্পন্ন হওয়ার পর আমরা সীমান্ত দৈর্ঘ্যের ব্যাপারে কথা বলতে পারি। এখানে আগের সীমান্ত নির্ধারণে বাদ পরা অনেকগুলি এলাকা অন্তর্ভুক্ত হবে। দু’দেশের সার্ভেয়ার জেনারেলদের অনুমোদনের ভিত্তিতে স্থল সীমান্তের বর্তমান পিলারগুলি পুনঃস্থাপন নিশ্চিত করা হবে। যেখানে কোনও সীমারেখা চিহ্নিত করা নেই সেখানে নতুন করে পিলার স্থাপন করা হবে। ভারত-নেপাল সীমান্তে প্রায় চার হাজার টি পিলার ছিল, যার বেশিরভাগই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অথবা বিলীন হয়ে গিয়েছে বলে তিনি জানান ।

XS
SM
MD
LG