অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিযুক্ত শিক্ষিকা সম্পর্কে সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্তহীনতায় আবার শিক্ষার্থীদের আন্দোলন


রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেরা আবারও আন্দোলন শুরু করেছেন।  

দফায় দফায় সময় চেয়েও শেষ পর্যন্ত সাড়া মেলেনি শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দেয়া অভিযুক্ত শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিনের। ফলে তার অনুপস্থিতিতেই গত ২১শে অক্টোবর তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন কমিটি। পরে শুক্রবার ২২শে অক্টোবর বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত টানা বৈঠক চললেও কোন সিদ্ধান্তে পৌছতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকল। এমন খবর শিক্ষার্থীদের কাছে পৌঁছালে তারা আবারো আমরণ অনশনে বসেন।

সিরাজগঞ্জের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘রবীন্দ্র অধ্যায়ন’ বিভাগের প্রধান লায়লা ফেরদৌস হিমেল ভয়েস অফ আমেরিকাকে এসব তথ্য জানিয়ে আরো বলেন, দীঘ সময় ধরে সিন্ডিকেট বৈঠক চললেও অভিযুক্ত শিক্ষিকার বিষয়ে কোন সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি। তিনি বলেন, আমরা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই তদন্ত প্রতিদন প্রস্তুত করেছি। বারবার ওই শিক্ষিকা সময় চেয়ে বিলম্ব করেছেন। তিনি শেষ পর্যন্ত আর বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈঠকে আসেননি।
তিনি আরো জানান, সিন্ডিকেট বৈঠকে ফারহানা ইয়াসমিনের বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত না হওয়ায় শিক্ষার্থী শুক্রবার রাত থেকে আবারো আমরণ অনশনে বসেছে।

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্র অধ্যয়ন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবু জাফর হোসাইন বলেন, আমরা অভিযুক্ত শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিনের স্থায়ী বহিস্কার দাবীতে শুরু থেকেই আন্দোলন করে আসছিলাম। স্যারদের অনুরোধে আমরা আন্দোলন স্থগিত করেছিলাম। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে আমাদেরকে ফোন করে যখন জানানো হলো কোন প্রকার সিদ্ধান্ত ছাড়াই সিন্ডিকেট সভা মুলতবি করা হয়েছে এবং এও জানানো হয়েছে যে আগামী এক মাসের মধ্যে আর কোন বৈঠক হচ্ছে না তাই আমরা যেহেতু সমাধান পাচ্ছিনা তাই আবারও আমরণ অনশণ শুরু করেছি।

তদন্ত কমিটির সদস্য ‘রবীন্দ্র অধ্যয়ন’ বিভাগের প্রধান লায়লা ফেরদৌস হিমেল বলেন, বৃহস্পতিবার বিকেলে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. সোহরাব আলীর কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়।

XS
SM
MD
LG