অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

লতা মঙ্গেশকর: শ্রদ্ধায় ও স্মরণে


কিংবদন্তি সঙ্গীতশিল্পী লতা মঙ্গেশকর

উপমহাদেশের প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী লতা মঙ্গেশকরের মৃত্যুতে বাংলাদেশের সংগীতাঙ্গনেও শোকাবহ অবস্থা বিরাজ করছে। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে নিজের সম্মোহনী সুরের জালে মুগ্ধ করে রেখেছিলেন লতা মঙ্গেশকর। খ্যাতিমান এই শিল্পীর মহাপ্রয়াণে বাংলাদেশের শিল্পীরাও তাকে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় স্মরণ করছেন।

তাকে গান শোনাবার সৌভাগ্য হয়েছিল: সাবিনা ইয়াসমিন

সাবিনা ইয়াসমিন
সাবিনা ইয়াসমিন

লতা মঙ্গেশকরকে নিয়ে কিছু বলা আমার জন্য ধৃষ্টতা বলে আমি মনে করি। তার প্রতিটি গানই এতো শ্রুতিমধুর, বলে বোঝানো যাবে না। তার মৃত্যুর খবর শোনার পরে আমি স্তব্ধ হয়ে পড়েছিলাম। বারবার মনে পড়ছিল তার মুখটি। তার গান যেন কানে ভাসছিল। তিনি ছিলেন সংগীতের মা। স্বরস্বতী তার গলায় যেন বসেছিলেন। তার কণ্ঠ দিয়েই যেন স্বরস্বতী গান করতেন। আবার এই স্বরস্বতী পূজার দিনেই তিনি চলে গেলেন। তবে যেটি সবচেয়ে উল্লেখ করার মতো ঘটনা, আমার সৌভাগ্য হয়েছিল তাকে গান শোনাবার। ১৯৭৮ সালে বোম্বেতে তিনি আমার গান শুনেছিলেন। সেটি ছিল একটি চলচ্চিত্র উৎসব। বাংলাদেশ থেকে আমরা অনেকে গিয়েছিলাম, তাদের মধ্যে ছিলেন, অভিনেতা রাজ্জাক ভাই, অভিনেত্রী ববিতা। আমরা ভারতে চারটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলাম। তার মধ্যে বোম্বাইয়ের অনুষ্ঠানে আমি যখন গান করেছিলাম তখন লতা মঙ্গেশকর উপস্থিত ছিলেন। সেই অনুষ্ঠানে শচীন দেব বর্মন ছিলেন। আমি তার অনুরোধে আবদুল আলিম ভাইয়ের ‘নাইয়ারে নাইয়া’ গাইলাম। পরে আরও একটি গান গাওয়ার সময়ে মিলনায়তনে লতাজি প্রবেশ করলেন। তাকে দেখে আমি ভয় পেয়ে হারমোনিয়াম থামিয়ে গান বন্ধ করে দিয়েছিলাম। পরে সবাই আবার শুরু করতে বলায় শুরু করতে পেরেছিলাম। গান শেষ হওয়ার পরে তিনি আমার কণ্ঠের খুব প্রশংসা করলেন। বাংলা গানের প্রশংসা করলেন। বাংলা ভাষার প্রশংসা করলেন। একাত্তরে সুনীল দত্তের সাথে অল্প সময়ের জন্য বাংলাদেশে এসেছিলেন, তা বললেন। শচীন দেব বর্মন আমাকে এবং লতা মঙ্গেশকরকে দুইপাশে রেখে ছবি তুললেন। বললেন, আমি দুইদেশের দুই লতার সাথে ছবি তুলছি। আরও একবার লতা মঙ্গেশকরের সাথে দেখা হয়েছিল ভারতেই, সেটা অনেক পরে। তবে সেদিন খুব অল্প আলাপ হয়েছিল। লতা মঙ্গেশকরের গান নিয়ে বলার মতো যোগ্যতা আমার নাই। তিনি চলে গেলেন, কিন্তু তার গান চিরদিন থেকে যাবে।

পৃথিবী দুইটি, একটি লতা মঙ্গেশকরের আরেকটি লতা মঙ্গেশকরহীন: কনকচাঁপা

কনকচাঁপা
কনকচাঁপা

লতা মঙ্গেশকরের গান শুনেই আমরা বড় হয়েছি। আমাদের বাবারাও তার গান শুনেছেন। কয়েকটি প্রজন্ম তার গান শুনে শুনে বেড়ে ওঠেছে। তার সাথে আমার কোনো ব্যক্তিগত স্মৃতি নেই। তবে আমার মনে হয়, একজন লতা মঙ্গেশকরের সাথে ব্যক্তিগত আলাপ থাকাটা কি খুব দরকারি? তার গানই তো তার পরিচয়। লতা মঙ্গেশকরের সময়ে আমার জন্ম হয়েছিল, আমরা একই সময়ে বেঁচেছিলাম এটা ভাবতেও আমার আনন্দ হয়।

আমি একটা বিষয়ে বিশ্বাস করি যে, তিনি যেখানে ছিলেন এবং আমরা যেখানে রয়েছি তবুও তার একটা নিঃশ্বাস যেন আমি পেতাম। তার মৃত্যুর পরে মনে হচ্ছে সেই নিঃশ্বাসটা আর বুঝি পাই না। সংগীতে লতা মঙ্গেশকরের যে অবদান তা কখনো শেষ হওয়ার নয়। মানুষ যতদিন সংগীত শুনবে ততদিন লতা মঙ্গেশকর থাকবেন। তার গানের আবেদন কোনদিনই ফুরিয়ে যাবে না।

কেউ আছেন ইতিহাসে স্থান পান, আবার কেউ ইতিহাস নির্মাণ করেন। লতা মঙ্গেশকর ইতিহাস নির্মাতা: সৈয়দ আবদুল হাদী

সৈয়দ আবদুল হাদী
সৈয়দ আবদুল হাদী

লতা মঙ্গেশকর এমন একটি নাম, যা শুধু উপমহাদেশের নন, বিশ্ব সংগীতেরই এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। তার এই মহাপ্রয়াণে বিশ্বসংগীত একটি উজ্জ্বল নক্ষত্রকে হারালো। তার গানের মধ্য দিয়ে তিনি যে কীর্তি রেখে গেলেন তা তাকে এক অনন্য স্থানে পৌঁছে দিয়েছে। তার এই মৃত্যুকে আমি বলতে চাই, মহাপ্রয়াণ। এটি সত্যিকারের মহাপ্রয়াণ। বিশ্ব সংগীতের ইতিহাসে তিনি শ্রদ্ধার যে আসনে বসে ছিলেন সেখানেই থাকবেন। কেউ কেউ আছেন যারা ইতিহাসে স্থান পান। আবার কেউ কেউ আছেন যারা নিজেরাই ইতিহাস তৈরি করেন। লতা মঙ্গেশকর ইতিহাস নির্মাতাদের একজন।

পৃথিবীজুড়ে থাকা তার কোটি কোটি ভক্তদের মাঝে আমিও একজন: বাপ্পা মজুমদার

বাপ্পা মজুমদার
বাপ্পা মজুমদার

লতা মঙ্গেশকরকে নিয়ে বলতে গেলে বিশেষকরে, তার গান নিয়ে বলার মতো কোনো যোগ্যতাই আসলে আমার নেই। এটুকু কেবল বলতে পারি, তার এই মহাপ্রস্থানে বিশ্ব শোকে স্তব্ধ হয়ে পড়েছে। আমার নিজের কথা বলতে হলে বলতে পারি, পৃথিবীজুড়ে থাকা তার কোটি কোটি ভক্তদের মাঝে আমিও একজন। সংগীতের প্রতি তার যে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা তিনি আজীবন দিয়ে গেছেন, সেখান থেকে আমাদের শিখবার অনেক কিছু আছে। তার এই প্রয়াণের দিনে আমি কেবল এটুকু বলতে চাই- বিশ্বসংগীত আজ শোকে মূহ্যমান। তার প্রতি আমার অন্তহীন শ্রদ্ধা।

XS
SM
MD
LG