অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

করতোয়া নদীতে নৌকাডুবি: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৮, এখনও নিখোঁজ চারজন


করতোয়া নদীতে নৌকাডুবি

বাংলাদেশের পঞ্চগড়ের করতোয়া নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) আরও ১৮টি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ নিয়ে এ দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৮ জনে দাঁড়িয়েছে। এই মরদেহগুলোর মধ্যে, নারী ৩০ জন, শিশু ২১ জন এবং পুরুষ ১৭ জন।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দীপঙ্কর রায় জানান, “মঙ্গলবার রাতে তৃতীয় দিনের মত উদ্ধার অভিযান সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া, আর মাত্র চারজন নিখোঁজ রয়েছে।”

মাড়েয়া বামনহাট ইউনিয়ন পরিষদে স্থাপিত জরুরি তথ্য ও সহায়তা কেন্দ্রের সর্বশেষ তথ্যে জানা গেছে, রবিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) ২৫ জন এবং সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) ২৫ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স দিনাজপুর অঞ্চলের সহকারী পরিচালক মঞ্জিল হক জানান, “নদীর পানি নামতে শুরু করেছে। নদীর তলদেশে কাদার মধ্যে আটকে পড়া মরদেহ উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত থাকবে। ঘটনাস্থল থেকে ভাটির দিকে ৩০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ফায়ার সার্ভিসের ডুডুরি দল স্থানীয়দের সহায়তায় অভিযান পরিচালনা করছেন।”

তিনি আরও জানান,“ মরদেহগুলো শনাক্ত করার পর, এগুলো স্বজনদের হাতে বুঝিয়ে দিচ্ছে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন।”

মঙ্গলবার দুপুরে রেলমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিভেন্সের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক ওয়াহিদুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক মো. জহুরুল ইসলাম, পুলিশ সুপার এসএম সিরাজুল হুদাসহ জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারা সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে দুর্ঘটনাস্থলে আসেন। এসময়, রেলমন্ত্রী বলেন, “নৌকাডুবিতে যাদের মৃত্যু হয়েছে, তাদের পরিবারের পূর্ণবাসনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

এদিকে, সরকারের পক্ষ থেকে মৃতদের প্রত্যেক পরিবারকে সৎকারের জন্য ২০ হাজার টাকা এবং ধর্ম মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ২৫ হাজার টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়েছে।

রেলমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন আরও বলেন, “নিখোঁজ ব্যক্তিদের যে তালিকা করা হয়েছে, তালিকার শেষ ব্যক্তিটি উদ্ধার না হওয়া পর্যন্ত অভিযান চলমান থাকবে।”

XS
SM
MD
LG