অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরারের স্মরণসভায় ছাত্রলীগের হামলা, আহত অন্তত ১২ জন


বুয়েট শিক্ষার্থী আবরারের স্মরণসভায় ছাত্রলীগের হামলা

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে, শুক্রবার (৭ অক্টোবর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ক্যাম্পাসে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ স্মরণসভা ও প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে। এই কর্মসূচিতে ছাত্রলীগ কর্মীদের হামলায় অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন।

২০১৯ সালে বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদকে ঐ বিশ্ববিদ্যালয়ের শের-ই-বাংলা হলে তৎকালীন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতারা পিটিয়ে হত্যা করে।

শুক্রবার বিকাল ৪টার দিকে আবরারের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে, সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আয়োজিত সমাবেশে হামলা চালায় ছাত্রলীগ কর্মীরা।

কর্মসূচি শুরু হলে, ছাত্রলীগের কর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী কেন্দ্র (টিএসসি) থেকে হামলা চালায়। হামলার সময় ছাত্র অধিকার পরিষদের কর্মসূচির চেয়ার ও মাইক্রোফোন ভাঙচুর করা হয় এবং ব্যানার ছিঁড়ে ফেলা হয়।

আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে আরেক দফা সংঘর্ষ হয়। এ হামলায় ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার গ্রন্থাগার সম্পাদক জাহিদ আহসান ও ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন আহত হন।

ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব খান বলেন, “ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীরা ক্যাম্পাসে বহিরাগত ও মৌলবাদীদের নিয়ে কর্মসূচি পালন করছে। আমরা তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র কি-না জানতে চাইলে, তারা আমাদের ওপর হামলা চালায়। পরে, বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাদের বাধা দেয়।”

ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা বলেন, “ছাত্রলীগের লোকজন কোনো উসকানি ছাড়াই একটি শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি চলাকালে হামলা চলায় এবং আমাদের ১২ কর্মীকে আহত করে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাদের দেখতে গেলে ছাত্রলীগ আবারও আমাদের ওপর হামলা চালায়।”

XS
SM
MD
LG