অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আদানির বিদ্যুৎ নিয়ে কোনো অনিশ্চয়তা নেই: প্রতিমন্ত্রী নসরুল নসরুল হামিদ


আদানির বিদ্যুৎ নিয়ে কোনো নিশ্চয়তা নেই: প্রতিমন্ত্রী নসরুল নসরুল হামিদ।
আদানির বিদ্যুৎ নিয়ে কোনো নিশ্চয়তা নেই: প্রতিমন্ত্রী নসরুল নসরুল হামিদ।

বাংলাদেশের বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন যে চুক্তি অনুযায়ী মার্চ মাসে ভারতের আদানি গ্রুপের ঝাড়খণ্ড পাওয়ার প্লান্ট থেকে বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হবে। রবিবার (৫ ফেব্রয়ারি) প্রতিমন্ত্রী তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, “আদানি পাওয়ার থেকে জাতীয় গ্রিডে বিদ্যুৎ সরবরাহ নিয়ে কোনও অনিশ্চয়তা নেই।”

প্রতিমন্ত্রী বলেন যে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ড (বিপিডিবি) আদানি গ্রুপের সঙ্গে সই করা বিদ্যুৎ ক্রয় চুক্তি (পিপিএ) সংশোধন করতে চেয়েছিল। নসরুল হামিদ বলেন, “পায়রা পাওয়ার প্লান্ট এর মতো অন্যান্য কয়লাভিত্তিক প্ল্যান্ট এর তুলনায় আদানির বিদ্যুতের শুল্ক প্রতিযোগিতামূলক হবে। আদানি সরবরাহ করা বিদ্যুৎ-এর শুল্ক পায়রা প্লান্টের বিদ্যুতের শুল্কের চেয়ে বেশি হবে না।”

তিনি আরও বলেন, “মার্চে জাতীয় গ্রিডে প্রায় ৭৫০ মেগাওয়াট এবং চলতি বছরের এপ্রিল থেকে আরও ৭৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যুক্ত হবে।:

নসরুল হামিদ আসন্ন সেচ মৌসুমে বিদ্যুৎ ঘাটতির আশঙ্কা নেই বলে জানান। চলতি ফেব্রুয়ারি মাস থেকে শুরু হয়েছে সেচ মৌসুম। চলবে মে মাসের শেষ পর্যন্ত। প্রতিমন্ত্রী দাবি করেন যে সেচ মৌসুম শুরুর আগেই রামপাল ও বরিশালসহ বেশ কয়েকটি বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, “আমরা গ্যাস সরবরাহ বাড়ানোর মাধ্যমে বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়ানোর চেষ্টা করছি। এখন আন্তর্জাতিক বাজারে গ্যাসের দাম তুলনামূলকভাবে স্থিতিশীল। বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোতে গ্যাস সরবরাহ আরও বাড়ানো হবে, যাতে মার্চ মাসে বিদ্যুৎ সরবরাহ পরিস্থিতির আরও উন্নতি হয়।” নতুন স্থাপিত কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র গুলো এ বছর একের পর এক চালু হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

XS
SM
MD
LG