অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ আরও ছয় মাস বাড়ানো হয়েছে - স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান  


বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া- ফাইল ফটো -এএফপি

রোববার ঢাকায় সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ানো হয়েছে। খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে আবেদন করা হলে তা আইন মন্ত্রণালয়ের মতামতের জন্য পাঠানো হয়েছিল।

তিনি বলেন আইন মন্ত্রণালয়ের মতামতের ওপর ভিত্তি করে আগের শর্তগুলো বহাল রেখেই খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ চতুর্থবারের মতো ৬ মাস বাড়ানো হয়েছে। আগের শর্ত অনুযায়ী খালেদা জিয়া বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে পারবেন বলে উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন তিনি দেশের বাইরে যেতে পারবেন না। তিনি বলেন আগামী ২৫শে সেপ্টেম্বর থেকে সরকারের এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ৮ই ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছিল ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ আদালত। রায় ঘোষণার দিন থেকেই তাঁকে পুরানো ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত কেন্দ্রীয় কারাগারে অন্তরীণ রাখা হয়। এরপর ৩০শে অক্টোবর এ মামলার আপিলে তাঁর সাজা আরো পাঁচ বছর বাড়িয়ে ১০ বছর করেছিল হাইকোর্ট।

একই বছরের ২৯শে অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়াকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেয় ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ আদালত। রায়ে ৭ বছরের কারাদণ্ড ছাড়াও তাঁকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয় এবং জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেয় আদালত। ওই দুই মামলায় আদালতের দেয়া রায়ে খালেদা জিয়াকে সর্বমোট ১৭ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়।

তবে গত বছর বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দিলে বিএনপি নেতারা খালেদা জিয়ার মুক্তির জোর দাবি তোলেন। পরিবারের পক্ষ থেকেও খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানানো হলে শর্তসাপেক্ষে সরকারের নির্বাহী আদেশে ৬ মাসের জন্য মুক্তি পান খালেদা জিয়া। প্রায় ২৫ মাস কারাভোগের পর ২০২০ সালের ২৫ শে মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ব বিদ্যালয়ের প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় মুক্তি পাওয়ার পর থেকে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী গুলশানে তাঁর নিজের ভাড়া বাসায় অবস্থান করছেন।

XS
SM
MD
LG