অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

রাজ্য বিধানসভায় 'বিধান পরিষদ' গঠনের প্রস্তাব দুই-তৃতীয়াংশ ভোটে পাশ


Parliament Building, India

পশ্চিমবঙ্গে আইনসভার উচ্চতর কক্ষ বিধান পরিষদ গঠনের লক্ষ্যে আজ মঙ্গলবার রাজ্য বিধানসভায় তৃণমূল কংগ্রেসের আনা প্রস্তাব দুই-তৃতীয়াংশ ভোটে পাশ হয়ে গিয়েছে। ২০১১ সালে যখন তৃণমূল প্রথম ক্ষমতায় এসেছিল, তখনও এই নিয়ে আলোচনা হয়েছিল যে, বিধান পরিষদ পুনর্গঠিত হবে কি হবে না। তখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার বলেছিল, বিপুল ঋণের বোঝা মাথায় নিয়ে এই সরকার ক্ষমতায় এসেছে, এখনই নতুন করে আর কোনো খরচসাপেক্ষ প্রকল্পে যাওয়া উচিত হবে না। কিন্তু এবারে ভোটের আগে থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতিশ্রুতি ছিল, ক্ষমতায় এলে বিধান পরিষদ পুনর্গঠন করা হবে।

সেই অনুযায়ী আজ বিধানসভা অধিবেশনের দ্বিতীয়ার্ধে তৃণমূল সরকার বিলটি পেশ করে। বিজেপি বিধায়কেরা এর তীব্র বিরোধিতা করেন। বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেন, রাজ্যের আর্থিক ভাণ্ডার শোচনীয় অবস্থায় এসে পৌঁছেছে, রাজ্য সরকার বলছেন। সেই সময় আবার এই খরচের মধ্যে যাওয়া কেন? বিধান পরিষদ গঠন মানেই নতুন করে পরিষদ সদস্যদের বেতন দেওয়া, পরিষদের অন্যান্য খরচাপাতি জোগাড় করা। তা ছাড়া কোনো বিল পাস করাতে বিধানসভার পর বিধান পরিষদের কাছে সেটা পাঠানো মানেই সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। সারা দেশে ২৮টি রাজ্যের মধ্যে মাত্র ৬টিতে বিধান পরিষদ আছে। শুভেন্দু বলেন, জনগণের দ্বারা প্রত্যাখ্যাত কিছু রাজনীতিককে পুনর্বাসন দিতে এই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

এর জবাবে রাজ্যের পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ১৯৫২ সালে সংবিধান সম্মতভাবেই এই রাজ্যে বিধান পরিষদ গঠন করা হয়েছিল। তার পর ১৯৬৯ সালে তা বন্ধ করে দেওয়া হয়। সংবিধানগত ভাবে কোনো আপত্তির তো এখানে কোনো কারণ নেই!

শুভেন্দু অধিকারী বলেন, আপনারা যদি এখানে গায়ের জোরে এই প্রস্তাব পাশ করান, আমরা লোকসভায় আমাদের সংখ্যাধিক্যের জোরে এটাকে আটকে দেব। এর পর তীব্র বাদানুবাদের মধ্যেই ভোটাভুটি হয়। আজ বিধানসভায় উপস্থিত ২৬৫ জন বিধায়ক ভোটে অংশ নেন। প্রস্তাবের পক্ষে ভোট পড়ে ১৯৬টি, বিপক্ষে ৬৯টি।

রাজার মন্ত্রিসভায় আগেই এই প্রস্তাব পাশ হয়ে গিয়েছিল। এখন বিধানসভায় পাশ হলো। এবার নিয়মমাফিক প্রস্তাবটি রাজ্যপালের কাছে যাবে, তিনি সম্মতি দিলে যাবে লোকসভা ও রাজ্যসভায়। সেখানে বিল পাশ হলে সেটা রাষ্ট্রপতির কাছে যাবে। তাঁর চূড়ান্ত সম্মতি মিললে তবেই আবার পশ্চিমবঙ্গে বিধান পরিষদ গঠিত হবে। তবে এর পথ খুব মসৃণ যে হবে না, তা এখনই অনুমান করা যাচ্ছে। আজকে ভোটাভুটির পর শুভেন্দু অধিকারীর নেতৃত্বে বিজেপি বিধায়কেরা প্রতিবাদ জানিয়ে বিধানসভা কক্ষত্যাগ করে বেরিয়ে যান।

XS
SM
MD
LG