অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারতের ৭০ তম প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে ভারতীয় সংবিধানে বাঙালির অবদান


ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে বাঙালির অবদান সবাই জানে। আজ ভারতের ৭০ তম প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে স্মরণ করা যাক ভারতীয় সংবিধানে বাঙালির অবদান।

রবীন্দ্রনাথ ভারতের জাতীয় সংগীত রচয়িতা বলে বাঙালি গর্ব করে। ভারতীয় সংবিধানের মূল পাণ্ডুলিপির প্রধান অলংকরণও কিন্তু একজন বাঙালির করা, নন্দলাল বসু। সংবিধানের মূল-কপিটি আসলে একটি হাতেলেখা ও হাতেআঁকা বই। ঠিক যেমন করে অতীতের পুথিগুলি তৈরি করা হত, এটিও সেভাবেই রচিত। সংবিধানটি আগাগোড়া হাতে লিখেছিলেন সুদক্ষ লিপিকর প্রেমবিহারী নারায়ণ রায়জাদা। সংবিধানের প্রত‍্যেকটি পাতার নীচে বাঁদিকে তাঁর স্বাক্ষর করা আছে। আর পাতাগুলির ওপরের দিকে রয়েছে অসামান্য সব ছবি।

জওহরলাল নেহরুর ইচ্ছে ও অনুরোধে শান্তিনিকেতনের কলাভবনের শিল্পাচার্য নন্দলাল বসু মোট বাইশটি ছবি আঁকেন ভারতের সংবিধানের পাতায় পাতায়। এই কাজে তাঁকে সহায়তা করেন কলাভবনেরই কয়েকজন ছাত্র। নন্দলালের অনবদ্য চিত্রশৈলীতে সংবিধানের পৃষ্ঠাগুলিতে ফুটে উঠেছে মহেঞ্জোদারোর সিলমোহর, রামায়ণ, মহাভারত, গুরুকূল শিক্ষা, বুদ্ধের জীবন ও সম্রাট অশোকের বৌদ্ধধর্ম-প্রচার, মহাবীরের কথা, গুপ্তযুগ, বিক্রমাদিত্যের সভা, সম্রাট আকবর ও মুঘল স্থাপত্য, শিবাজি, গুরুগোবিন্দ সিং, রানি লক্ষ্মীবাই, টিপু সুলতান, গান্ধীজির আন্দোলন, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু ও আজাদ হিন্দ ফৌজের লড়াই সহ ভারতের পাহাড়, সমুদ্র ও মরুভূমির বিচিত্র সৌন্দর্যের রূপ। সবমিলিয়ে সংবিধানের অলংকরণ যেন ভারতের চিত্রিত ইতিহাস ও ভূগোলকথা।

শুধু যে ইচ্ছেমতো ছবি এঁকে গেছেন নন্দলাল তা কিন্তু নয়। সংবিধানের বিষয় ও অনুচ্ছেদ অনুযায়ী অত‍্যন্ত সুচিন্তিতভাবে চিত্রায়ন করেছিলেন তিনি। এই অমূল্য সংবিধানটি রাখা আছে দিল্লিতে ভারতের সংসদ ভবনের গ্রন্থাগারে বিশেষ একটি হিলিয়ামগ‍্যাস ভরা বাক্সে। এই মূল সংবিধানটিই পরবর্তীকালে ফোটো-লিথোগ্রাফ পদ্ধতিতে অত‍্যন্ত যত্ন করে অল্পকিছু কপি ছাপা হয়েছিল দেরাদুনের সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার তত্ত্বাবধানে।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:54 0:00

XS
SM
MD
LG